kalerkantho


চট্টগ্রামে তারানা হালিম

অনিবন্ধিত সিম প্রথমে কয়েক ঘণ্টার জন্য, পরে পুরোপুরি বন্ধ হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

২৫ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



আগামী ৩০ এপ্রিলের মধ্যে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে সিম নিবন্ধন শেষ করার প্রাথমিক পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম।

গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে বন্দরনগরে এরিকসন বাংলাদেশের কার্যালয় ও ইন্টারনেট অব থিংস (আইওটি) পোর্টাল উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ তথ্য জানান টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘৩০ এপ্রিলের পর যেটি করব, সেটি হলো ক্রমান্বয়ে যেসব মোবাইল ফোন কম্পানির সিম বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে নিবন্ধন করা হয়নি সেগুলোতে সংকেত পাঠাব। প্রথমে কয়েক ঘণ্টার জন্য বন্ধ করে দেওয়া হবে। একপর্যায়ে সেগুলো একেবারে বন্ধ হয়ে যাবে। আমরা এটি করব, কারণ কয়েক ঘণ্টা বন্ধ করে ইঙ্গিত দিলে সিমের মালিক গিয়ে নিবন্ধন করে নেবেন। ’

তারানা হালিম বলেন, ‘আমি বারবার বলেছি, বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে নিবন্ধিত সিমের তথ্য এনআইডিতে যাচ্ছে; অন্য কোথাও সংরক্ষিত হচ্ছে না। এটি আমি এনশিওর করছি। ’ ইন্টারনেট খরচ কমানোর পরিকল্পনা রয়েছে কি না জানতে চাইলে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশে ইন্টারনেট খরচ সবচেয়ে কম। আমার ইচ্ছে আছে আরো কমানোর। তবে আমি সরকারের রাজস্বের ক্ষতি করতে চাই না। ’

কল-ড্রপ ও গ্রাহকের অজান্তে তথ্যলোপ প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, গাইডলাইনের বাইরে কল-ড্রপ হচ্ছে কি না, গ্রাহক ক্ষতিপূরণ পাচ্ছে কি না বিটিআরসি তা মনিটর করবে। এর জন্য যন্ত্রপাতি আনাসহ বিভিন্ন পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

মোবাইল ফোন অপারেটর একীভূতকরণ প্রসঙ্গে তারানা হালিম বলেন, ‘এ ক্ষেত্রে জনস্বার্থ সংরক্ষণ হয় কি না তা বিবেচনা করা হচ্ছে। আমরা নীতিগতভাবে সম্মত আছি। ’

এরিকসনের আইওটি প্রসঙ্গে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘যখন বার্সেলোনা গিয়েছিলাম তখন এরিকসনের সঙ্গে কথা হয়। তারা বলল, আইওটি নিয়ে যেতে পারেন। তারা যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল তা পূরণের পথে প্রথম পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। এর ফলে বাংলাদেশের সব ফ্যাক্টরি, বিজনেস কমিউনিটি, প্রতিটি স্থান, রাজপথ ইন্টারনেট সংযোগের আওতায় আসবে। ’


মন্তব্য