kalerkantho


পাঁচ সত্য এড়িয়ে যায় অনেকেই

২৫ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



পাঁচ সত্য এড়িয়ে যায় অনেকেই

১. পরিকল্পনায় প্রভাব ফেলে অর্থপূর্ণ আচরণ : আচরণের ওপরই অর্থবিষয়ক পরিকল্পনার সফলতা নির্ভর করে। কাগজে-কলমে এর গুরুত্ব না থাকলেও বিচারবুদ্ধিসম্পন্ন হতে হলে বাস্তবে এর চর্চা থাকা দরকার।

সাধারণত তাত্ক্ষণিক তৃপ্তি ও সমাধান পেতে মানুষ হুটহাট সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলে। কিন্তু এতে দীর্ঘ মেয়াদে বড় ধরনের সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে।

২. ধনীদেরও বাজেট দরকার : মন যা চায়, ধনীরা তাই করতে ভালোবাসে। অনেকে মনে করে, এর জন্য বাজেটের কোনো দরকার নেই। এই ভুল পথে এগিয়ে তারা প্রায়ই অনেকে বড় ধরনের সমস্যায় পড়ে যায়। সম্পদ মানুষের ওপর দায়িত্বশীলতা আনে। সামান্য সম্পদ নিয়ে বড় ভুল করলে সামান্য ক্ষতিই হয়। কিন্তু বিপুল সম্পদের ক্ষেত্রে ভুল করলে ক্ষতির পরিমাণটা বড় হয়। যথেষ্ট অর্থ থাকায় অনেকে বাজেট তৈরির প্রয়োজন অনুভব করে না।

কিন্তু পরে দেখা যায়, অযথাই তাদের অঢেল অর্থ খরচ হয়ে গেছে।

৩. টাকা-পয়সাই সব নয় : বিচক্ষণ ব্যক্তিরা হিসাব-নিকাশে পারদর্শী। কিন্তু প্রায়ই তারা সাধারণ হিসাবে তালগোল পাকিয়ে ফেলে। এই সত্যটি তারা ভুলে যায় যে অর্থ জীবনের সব কিছু নয়। পরিবার-পরিজনের কথা চিন্তা করুন, যাদের জন্য আপনার এই বিশাল আয়োজন। বন্ধুত্বের কথা ভাবুন, যারা আপনাকে প্রতিনিয়ত উৎসহ জুগিয়ে চলেছে।

৪. কঠোরতার পাশাপাশি দরকার নমনীয়তা : শুনতে পরস্পরবিরোধী মনে হয়। কিন্তু অর্থনীতিতে শক্ত কাঠামো ও নমনীয়তা একই সঙ্গে সমান গুরুত্ব রাখে। ধরুন, হঠাত্ অসুস্থ হয়ে বড় অঙ্কের অর্থ খরচ হয়ে গেছে। কিন্তু এর জন্য আপনার তহবিল নেই। তাহলে কী করার আছে? সে ক্ষেত্রে অন্য কাজের বাজেট থেকে এটি দিতে পারেন। অর্থাত্ প্রয়োজনে আপনাকে নিয়মের বেলায় নমনীয়ও হতে হবে।

৫. শিক্ষা আসে বাস্তবতা থেকে : কেউ কপাল চাপড়ায়। আর কেউ তা থেকে শিক্ষা নেয়। যারা ক্ষতির শিকার হয়েছে, তাদের পর্যবেক্ষণ করলেও অনেক বিপদ থেকে রেহাই পাওয়া যায়। আবার নিজের জীবনের বাস্তবতা থেকেও শিক্ষা নেয় কেউ কেউ।

বিজনেস ইনসাইডার অবলম্বনে সাকিব সিকান্দার


মন্তব্য