kalerkantho


স্ত্রীসহ ছাত্রলীগ নেতাকে লাঞ্ছিত

চট্টগ্রামে ওসিসহ চার পুলিশের বিরুদ্ধে মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

২৪ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



চট্টগ্রামে একটি হোটেলে স্ত্রীসহ লাঞ্ছিত হওয়ার ঘটনায় নগরের সদরঘাট থানার ওসিসহ চার পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করেছেন ছাত্রলীগ নেতা আবদুর রহিম জিল্লু। গতকাল বুধবার মহানগর হাকিম ফরিদ আলমের আদালতে ‘নির্যাতন ও হেফাজত মৃত্যু নিবারণ’ আইনে এ মামলা করা হয়।

মামলার আসামিরা হলেন সদরঘাট থানার ওসি মাইনুল ইসলাম ভুঁইয়া, উপপরিদর্শক মো. সালেহসহ আরো দুজন অজ্ঞাতপরিচয়ের পুলিশ সদস্য। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে কোতোয়ালি থানার সহকারী পুলিশ কমিশনারকে তদন্ত করে প্রতিবেদন দেওয়ার নির্দেশ নিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, গত ১৯ মার্চ নগরের সদরঘাট থানার দক্ষিণ নালাপাড়ায় হোটেল আল ইসলাম থেকে স্ত্রীসহ জিল্লুকে আটক করে পুলিশ। ওই দিন ঘটনার প্রতিবাদে নগর ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা থানা ঘেরাও করে ভাঙচুর করে। তবে থানা এবং ট্রাফিক অফিসে হামলার বিষয়ে কোনো আইনগত ব্যবস্থা নেয়নি পুলিশ।

আবদুর রহিম জিল্লু ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক উপসম্পাদক ও আওয়ামী লীগের সভাপতি এ বি এম মহিউদ্দিন চৌধুরীর অনুসারী হিসেবে পরিচিত। এ ছাড়া বঙ্গবন্ধুর ছবি বিকৃত করার অভিযোগে চট্টগ্রামের সংসদ সদস্য এম এ লতিফের বিরুদ্ধে আদালতে একটি মানহানি মামলার বাদী তিনি।

এ বিষয়ে জিল্লু সাংবাদিকদের জানান, ঢাকা থেকে আসা কয়েকজন বন্ধুর সঙ্গে ওই হোটেলের ২০১ নম্বর রুমে স্ত্রীসহ গল্প করছিলেন তিনি। এ সময় সদরঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ মাইনুল ইসলাম ভুঁইয়ার নেতৃত্বে তাঁদের আটক ও লাঞ্ছিত করে পুলিশ।

নিজের পরিচয় দেওয়ার পরও সংসদ সদস্য এম এ লতিফের বিরুদ্ধে মামলা করার কারণ জানতে চান ওসি।

তবে ওসি মাইনুল ইসলাম ভুঁইয়া বলেন, ‘ওই দিন ওই হোটেলে অসামাজিক কার্যক্রম চলছে, এমন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালানো হয়েছিল। পরে জিল্লু ও তাঁর স্ত্রীর পরিচয় পাওয়ার পর তাঁদের থানা থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়। ’


মন্তব্য