kalerkantho


বদরগঞ্জে ধর্ষণের পর ছাত্রী অন্তঃসত্ত্বা গ্রেপ্তার ধর্ষক

রংপুর অফিস   

২৪ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



বদরগঞ্জে ষষ্ঠ শ্রেণির এক ছাত্রী ধর্ষণের পর অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনায় ‘জড়িত’ বদরগঞ্জ দলিল লেখক সমিতির সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন সরকারকে গত মঙ্গলবার রাতে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

জানা গেছে, ওই স্কুল ছাত্রী রুহুল আমিন সরকারের বাড়ির সামনে খেলাধুলা করত। এ সুযোগে তিনি মেয়েটিকে বিভিন্ন ধরনের খাবার কিনে দিয়ে নিয়মিত ধর্ষণ করতেন। একপর্যায়ে ছাত্রী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে তার পরিবার থানায় একটি মামলা করে। মামলার পর পুলিশ অভিযুক্ত রুহুল আমিন সরকারকে তার বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করে। এলাকাবাসী জানায়, বদরগঞ্জ পৌর শহরের ওই ছাত্রী রুহুল আমিনের নবম শ্রেণিতে পড়ুয়া মেয়ের বান্ধবীর ছোট বোন। স্কুল শেষে ভুক্তভোগী ওই ছাত্রী রুহুল আমিনের বাড়ির সামনে খোলা জায়গায় খেলাধুলা করত। এ সুযোগে তিনি মেয়েটিকে মামা পরিচয় দিয়ে তাকে বিভিন্ন ধরনের খাবার কিনে দিয়ে ধর্ষণ করতে থাকে। ঘটনাটি জানতে পেরে ছাত্রীর মা তাকে নিয়ে হাসপাতালে গেলে জানা যায়, সে ছয় মাসের অন্তঃসত্ত্বা। এ ঘটনায় রুহুল আমিনের নামে মামলা হলে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে।

এ বিষয়ে ছাত্রীর মা বলেন, ‘লম্পট রুহুল আমিন এত দিন আমার অবুঝ শিশুকে মামা পরিচয় দিয়ে বাসায় ডেকে নিয়ে যেত। কিন্তু কে জানত সেই লোকটাই আমাদের এমন সর্বনাশ করবে। ’ এ সময় তিনি রুহুল আমিনের শাস্তি দাবি করেন।

অন্যদিকে গ্রেপ্তার হওয়া রুহুল আমিন সরকার অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘এটা আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র। মেয়েটির পেটের সন্তান কার ডিএনএ টেস্ট করলেই এর প্রমাণ হবে। ’

বদরগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) এ কে এম নুরুল ইসলাম জানান, মেয়েটির স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, ঘটনার সঙ্গে রুহুল আমিনই জড়িত। কারণ ভুক্তভোগী অন্য কারো নাম বলেনি।


মন্তব্য