kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০১৬। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


যুদ্ধশিশুদের নিয়ে ‘জন্মসাথী’র প্রদর্শনী

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৩ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



যুদ্ধশিশুদের নিয়ে ‘জন্মসাথী’র প্রদর্শনী

মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের ২০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে গতকাল আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। ছবি : কালের কণ্ঠ

মুক্তিযুদ্ধের আগুনঝরা দিনগুলো পেরিয়ে ১৯৭২ সালের ১৪ জানুয়ারির ঘটনা। ঢাকার হলি ফ্যামিলি রেড ক্রিসেন্ট হাসপাতালে জন্ম নেয় ১৩টি শিশু।

যাদের পাঁচজন যুদ্ধশিশু। স্বাধীন দেশে বাকি যে আটটি শিশু নিজেদের পরিবারের সঙ্গে বেড়ে উঠেছিল, তাদের একজন শবনম ফেরদৌসী। বাংলাদেশের সমান বয়সী মেয়েটি বেড়ে ওঠার সঙ্গে সঙ্গে জানতে থাকে ইতিহাস। একই হাসপাতালে একই দিনে জন্ম নেওয়া যুদ্ধশিশুদের সঙ্গে সে অনুভব করতে থাকে ‘জন্মের বন্ধন’। শবনমের মনের গহীনে তারা হয়ে ওঠে ‘জন্মসাথী’।

বড় হয়ে সেই জন্মসাথীদের খোঁজে শুরু হয় শবনমের অনুসন্ধান। হাসপাতালের সেই জন্মসাথীদের খোঁজ শবনম পাননি। তবে সেই তালাশের পথে একাত্তরের তিন যুদ্ধশিশুর সঙ্গে তাঁর পরিচয় ঘটে। তৈরি হয় ৯০ মিনিটের প্রামাণ্যচিত্র ‘জন্মসাথী’।

মুক্তিযুদ্ধের অজানা অধ্যায় উন্মোচনের লক্ষ্যে মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর ও একাত্তর টেলিভিশন যৌথভাবে প্রযোজনা করেছে এই প্রামাণ্যচিত্র। শবনম ফেরদৌসী নির্মিত ৯০ মিনিটের এ প্রামাণ্যচিত্রের উদ্বোধনী প্রদর্শনী হলো গতকাল। বসুন্ধরা স্টার সিনেপ্লেক্সে প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু ও সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন একাত্তর টেলিভিশনের প্রধান সম্পাদক ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোজাম্মেল বাবু, মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের ট্রাস্টি মফিদুল হক ও নির্মাতা শবনম ফেরদৌসী।

সাংস্কৃতিক পরিবেশনায় স্বাধীনতা সংগ্রাম : মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর আগারগাঁওয়ে নিজস্ব বিশাল ভবনে যাওয়ার অপেক্ষায়। এরই মাঝে শেষবারের মতো সেগুনবাগিচার ছোট্ট মিলনায়তনে গতকাল শুরু হয়েছে মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের ২০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও স্বাধীনতা উৎসব। গতকালের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন জাদুঘরের ট্রাস্টি ডা. সারওয়ার আলী। জাদুঘরের ট্রাস্টি ও সদস্যসচিব জিয়াউদ্দিন তারিক আলীর বার্ষিক প্রতিবেদনের পর ‘কালান্তরের ঘূর্ণিপাকে’ শীর্ষক প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী স্মারক বক্তৃতা দেন প্রাবন্ধিক-সাংবাদিক আবুল মোমেন। পরে সন্ধ্যা শুরু হয় সাংস্কৃতিক পরিবেশনা। নৃত্যদল স্পন্দনের নৃত্য পরিবেশনার পর উজ্জ্বল আকাশের গ্রন্থনা ও নির্দেশনায় ঢাকা স্বরকল্পন পরিবেশন করে আবৃত্তি প্রযোজনা ‘এখনও একাত্তর’। দক্ষিণখান আদর্শ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা নৃত্য পরিবেশন করে। এরপর সম্মিলিত কণ্ঠে স্বাধীনতার গান। পরে দ্বৈত নৃত্যের মধ্য দিয়ে শেষ হয় তাদের আয়োজন।

বিপিএসের পুরস্কার বিতরণী : বাংলাদেশ ফটোগ্রাফিক সোসাইটি (বিপিএস) ও বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির যৌথ আয়োজনে বিপিএস বার্ষিক আলোকচিত্র প্রতিযোগিতার পুরস্কার প্রদান ও প্রদর্শনী শুরু হয়েছে গতকাল। একাডেমির জাতীয় চিত্রশালা মিলনায়তনে এ আয়োজনের বিশেষ অতিথি ছিলেন চেক ফেডারেশন অব ফটোগ্রাফিক আর্টের চেয়ারম্যান গ্যারিক অ্যাভানেসিয়াম। সভাপতিত্ব করেন সোসাইটির সভাপতি আশফাক আহমেদ। বার্ষিক আলোকচিত্র প্রতিযোগিতায় প্রথম পুরস্কার পেয়েছেন জাকিরুল মাজেদ কনক, দ্বিতীয় হয়েছেন আবু হাসান কবির হিমেল ও ও তৃতীয় হয়েছেন জামিলা জামান। চার দিনের এ প্রদর্শনী ২৫ মার্চ সকাল ১০টা থেকে রাত ৭টা পর্যন্ত চলবে।


মন্তব্য