kalerkantho

26th march banner

‘ডাউন সিনড্রোম শিশুমৃত্যুর হার বাড়ায়’

২১ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



ডাউন সিনড্রোম সম্পর্কে জনসচেতনতা না থাকায় দেশে ‘ডাউন’ শিশুর সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। বেশির ভাগ ডাউন শিশুর জন্মগতভাবে হূদযন্ত্রের সমস্যা থাকে। এ কারণে জন্মের পর অনেক শিশুর মৃত্যু হয়, যা নবজাতকের মৃত্যু হার বাড়িয়ে দেয়।

‘বিশ্ব ডাউন সিনড্রোম ২০১৬ দিবস’ উপলক্ষে গতকাল রবিবার রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে আয়োজিত বৈজ্ঞানিক সেমিনারে এ তথ্য জানানো হয়। সেমিনার আয়োজন করে ‘বাংলাদেশ ডাউন সিনড্রোম অ্যাসোসিয়েশন’। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন সংসদ সদস্য ডা. ইউনুস আলী সরকার। সেমিনার পরিচালনা করেন অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি অধ্যাপক মেজবাহ উদ্দিন আহমেদ। আমন্ত্রিত বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রসূতি ও স্ত্রীরোগ বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. রেজাউল করিম কাজল ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড বায়োটেকনোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান ড. শরীফ আখতারুজ্জামান। ডা. রেজাউল করিম কাজল গর্ভাবস্থায় ৩৫৫ শিশুর ডিএনএ সংগ্রহ ও ফলাফল প্রকাশ করেন।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার হিসেবে, বাংলাদেশে প্রতিদিন প্রায় ১৫ জন ডাউন শিশুর জন্ম হয়। গর্ভাবস্থায় ১১ থেকে ১৪ সপ্তাহে জেনেটিক আলট্রাসনোগ্রাফি পরীক্ষার মাধ্যমে ডাউন শিশু জন্মানোর ঝুঁকি নির্ণয় করা যায়। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।


মন্তব্য