kalerkantho


খাঁটি মানুষের ১১ গুণ

১৮ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



খাঁটি মানুষের ১১ গুণ

১. বস্তুগত অসারতা জানা : বস্তুগত বিষয়ের অসারতা অন্য কেউ জানুক কিংবা না জানুক, তাতে কিছুই যায় আসে না খাঁটি মানুষের। তাঁরা কখনোই বস্তুগত মূল্যবান বিষয় দিয়ে কাউকে বিবেচনা করেন না।

২. অভিজ্ঞতার সন্ধান : প্রত্যেক মানুষের জীবনই অভিজ্ঞতার মাধ্যমে সমৃদ্ধ হয়। খাঁটি মানুষ এ বিষয়টি অন্যদের তুলনায় ভালো জানেন এবং সে অনুযায়ী তাঁরা সব সময় নতুন বিষয় শিখতে ও জানতে আগ্রহী থাকেন।

৩. অন্যের কথা শোনা : অন্যের কথা শোনার গুরুত্ব কখনোই শেষ হয়ে যায় না। অন্যরা কী বলছেন তা জেনে নেওয়ায় তাই খাঁটি মানুষের কোনো ক্লান্তি নেই। তাঁরা সব সময়ই অন্যর কথা শুনতে আগ্রহী থাকেন।

৪. মতামত প্রকাশে নিঃসংকোচ : নিজের মতামত প্রকাশের ক্ষেত্রে খাঁটি মানুষ কখনোই সংকোচ করেন না। তাঁরা সব সময়ই নিজের সত্যিকার মনোভাব, দৃষ্টিভঙ্গি কিংবা অনুভূতি প্রকাশ করেন। এ ক্ষেত্রে তাঁরা নিজের মনের মধ্যে থাকা কথাগুলো সঠিকভাবে প্রকাশ করেন কোনো লুকোছাপা না করেই।

৫. অন্যকে সন্তুষ্ট করায় অনাগ্রহী : অন্যকে সন্তুষ্ট করার মাধ্যমে জীবনধারণে অনাগ্রহী থাকেন এ ধরনের মানুষ। তাঁরা অন্য মানুষের সত্যিকার বিষয়গুলো বিবেচনা করেন এবং এ ক্ষেত্রে অযাচিত প্রভাব এড়িয়ে চলেন।

৬. অন্যদের জন্য করা : অন্যদের প্রতি ভালোবাসার হাত বাড়িয়ে দিয়ে এ ধরনের মানুষ তৃপ্তি পান। তাঁরা সব সময়ই অন্যের প্রয়োজনের বিষয়টি নিয়ে ভাবেন এবং তাঁদের সে প্রয়োজন মেটাতে চেষ্টা করেন।

৭. নিজেকে ভালোবাসা : নিজের প্রতি ভালোবাসা না থাকলে অন্যকে ভালোবাসা যায় না। এ কারণে এমন ধরনের মানুষ নিজের দিকেও খেয়াল রাখেন।

৮. ভুল স্বীকার করা : প্রত্যেক মানুষেরই ভুল হয়। এ ধরনের মানুষ সে বিষয়টি জানেন এবং নিজের ভুলের কথা স্বীকার করে নেন।

৯. প্রত্যেকের স্বাতন্ত্র্য সম্পর্কে জানা : তাঁরা জানেন যে প্রত্যেক মানুষই পৃথক। এ কারণে তাঁরা প্রত্যেক মানুষের পথক দৃষ্টিভঙ্গি ও মূল্যবোধকে দাম দেন। তাঁরা নিজের মতামতকেই সঠিক বা ভুল বলে মনে করেন না।

১০. দায়িত্ব নেওয়া : তাঁরা নিজের কাজের দায়িত্ব নিজেরাই নেন। প্রতিটি পরিস্থিতির কারণে কিভাবে প্রভাবিত হয়েছেন তা জেনে তাঁরা সিদ্ধান্ত নেন। নিজের ভুলের জন্য এ ধরনের মানুষ অন্যদের দায়ী করেন না।

১১. নিজের মনের মতো চলা : প্রত্যেকের মনের মাঝেই একটি জোরালো কণ্ঠ থাকে, যা তাদের নানা বিষয় নিয়ে দিকনির্দেশনা দেয়। তবে সবাই সে দিকনির্দেশনা অনুযায়ী চলে না। যদিও এ ধরনের খাঁটি মানুষ নিজের মনের কথা শোনেন এবং সে অনুযায়ী চলেন।

হাফিংটন পোস্ট অবলম্বনে ওমর শরীফ পল্লব


মন্তব্য