kalerkantho

বুধবার । ১৮ জানুয়ারি ২০১৭ । ৫ মাঘ ১৪২৩। ১৯ রবিউস সানি ১৪৩৮।


ওয়াহিদুল হক স্মরণে আজ শুরু হচ্ছে ‘দেশঘরের গান’

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৮ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



ওয়াহিদুল হক স্মরণে আজ শুরু হচ্ছে ‘দেশঘরের গান’

দেশের সাংস্কৃতিক আন্দোলনের পুরোধা ওয়াহিদুল হক স্মরণে দুই দিনব্যাপী সাংস্কৃতিক উত্সব শুরু হচ্ছে আজ শুক্রবার বিকেলে। ‘দেশঘরের গান’ শীর্ষক এ উত্সব অনুষ্ঠিত হবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদ প্রাঙ্গণে। উত্সবের উদ্বোধন করবেন চট্টগ্রামের বিশিষ্ট গীতিকার-সুরকার ও লোকগানের শিল্পী আবদুল গফুর।

উত্সবের প্রথম দিনের সাংস্কৃতিক পরিবেশনায় থাকবে চাঁপাইনবাবগঞ্জের কেরামত আলী সরকার ও তাঁর দলের আলকাপ গান, শহীদুল ইসলাম জটাধারী ও তাঁর দল এবং ঝিনাইদহের আবু বকর সিদ্দিক ও তাঁর দলের ঝাপন গান এবং টাঙ্গাইলের জহের আলী ও তাঁর দলের সঙযাত্রা।

আগামীকাল শনিবার উত্সবের দ্বিতীয় ও শেষ দিন সন্ধ্যায় থাকবে খুলনার জাহিদ দল এবং জেবুন্নেসা ও তাঁর দলের গাজীর গান, দিনাজপুরের নির্মল চন্দ্র সরকার ও অজিত সরকারের কবিগান প্রভৃতি।

বঙ্গবন্ধুর গল্প শোনো : জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৭তম জন্মদিন উপলক্ষে গতকাল বৃহস্পতিবার বাংলা একাডেমি আয়োজন করেছিল ‘বঙ্গবন্ধুর গল্প শোনো’ শীর্ষক অনুষ্ঠান। এতে রাজধানীর আটটি বিদ্যালয় ও বিভিন্ন শিশু সংগঠন থেকে অংশ নেয় হাজারেরও অধিক শিক্ষার্থী। দেশের গুণীজনদের মুখে তারা শুনল বঙ্গবন্ধুর বর্ণাঢ্য জীবন, আলোকিত নেতৃত্ব আর বিপথগামীদের হাতে সপরিবারের হত্যার কথা। আর মাঝেমধ্যেই শিক্ষার্থীরা কণ্ঠ ছেড়ে বলে উঠছিল মুক্তিযুদ্ধের শানিত স্লোগান—জয় বাংলা।

বাংলা একাডেমির নজরুল মঞ্চের বটতলায় আয়োজিত অনুষ্ঠানে শিশু-কিশোরদের বঙ্গবন্ধুর গল্প শোনান কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেন, অ্যাডভোকেট সুলতানা কামাল, কথাশিল্পী আনিসুল হক, শিশুসাহিত্যিক লুত্ফর রহমান রিটন, ডা. আব্দুন নূর তুষার, ডা. নুজহাত চৌধুরী, সাংবাদিক প্রণব সাহা ও ব্যাংকার নূরুল ফজল বুলবুল। এতে সভাপতিত্ব করেন একাডেমির মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান এবং পরিচালনা করেন সুভাষ সিংহ রায়। ঘাসফুল শিশু-কিশোর সংগঠনের দুই শিল্পী জয়িতা ও ইশরাতের কণ্ঠে ‘বঙ্গবন্ধু’ শিরোনামের একটি গান দিয়ে এ আয়োজন শেষ হয়।

বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনে শিল্পকলায় অনুষ্ঠান : বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস পালন উপলক্ষে গতকাল দেশের প্রতিটি জেলা ও উপজেলায় ‘ধন্য মুজিব ধন্য, বাংলা মায়ের মুক্তি এলো এমন ছেলের জন্য’ শীর্ষক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি।

সকালে একাডেমির জাতীয় চিত্রশালা প্লাজাসহ একযোগে দেশের সব জেলা ও উপজেলায় শিশু চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা শুরু হয়। এরপর শিশু মেলা, সমবেত নৃত্য, অ্যাক্রোবেটিক প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়। বিকেলে ছিল পুতুল নাট্য, মূকাভিনয়, অটিস্টিক শিশুদের পরিবেশনা, শিশু বিদ্যালয়ের পরিবেশনা এবং শিশুতোষ চলচ্চিত্র প্রদর্শনী। এ ছাড়া ছিল সমবেত নৃত্য, সমবেত সংগীত, একক সংগীত, আবৃত্তি এবং পিপলস লিটল থিয়েটারের পরিবেশনায় গানের সঙ্গে কোরিওগ্রাফি।


মন্তব্য