kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৯ জানুয়ারি ২০১৭ । ৬ মাঘ ১৪২৩। ২০ রবিউস সানি ১৪৩৮।


খুলনা জেনারেল হাসপাতাল

মাকে কোমল পানীয় খাইয়ে নবজাতক চুরি

খুলনা অফিস   

১৮ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



খুলনা জেনারেল হাসপাতালে মাকে কোমল পানীয় খাইয়ে ঘুম পাড়িয়ে দুই দিন বয়সী এক ছেলে নবজাতককে চুরির ঘটনা ঘটেছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে বিষয়টি প্রকাশিত হওয়ার পর চুরিতে জড়িত সন্দেহে এক নার্সকে মারধর করা হয়। এ ঘটনার পর হাসপাতালে সেবা দেওয়া বন্ধ করে দেন নার্সরা। নবজাতক চুরির ঘটনা তদন্তে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। এ ঘটনায় শিশুটির বাবা অজ্ঞাতপরিচয় আসামিদের বিরুদ্ধে সদর থানায় একটি মামলা করেছেন।

শিশুটির বাবা খুলনার রূপসা উপজেলার নন্দনপুর গ্রামের ইদ্রিস আলী কালের কণ্ঠকে জানান, গত ১৪ মার্চ তিনি সন্তানসম্ভবা স্ত্রী সানজিদা বেগমকে (২৫) খুলনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন। পরদিন সিজারের মাধ্যমে তাঁর যমজ বাচ্চা হয়, যার মধ্যে একটি ছেলে ও একটি মেয়ে। এরপর বাচ্চা দুটি নিয়ে মা সানজিদা হাসপাতালের দ্বিতীয় তলায় লেবার (গাইনি) ওয়ার্ডে ছিলেন। গতকাল সকালে ঘুম ভেঙে মা দেখেন, তাঁর পাশে ছেলেসন্তানটি নেই।

ইদ্রিস আলী অভিযোগ করেন, ‘হাসপাতালের প্রধান গেট নার্স যুথিকা ছাড়া কেউ খোলেনি। যুথিকার সহায়তা ছাড়া আর কেউ আমার বাচ্চা চুরি করতে পারে না। ’

চুরি হওয়া শিশুর মা সানজিদা বেগম বলেন, সিজারের পর যশোরের বাঘারপাড়া এলাকার বাসিন্দা পরিচয় দিয়ে একজন বয়স্ক মহিলা তাঁদের সঙ্গে সখ্য গড়ে তোলেন। গতকাল ভোরে ওই মহিলা তাঁকেসহ তাঁর মা মোছা. রেবেকা ও শাশুড়ি আকলিমা বেগমকে কোমল পানীয় খাওয়ান। এরপর তাঁরা তিনজনই ঘুমিয়ে পড়েন। তাঁদের ঘুম ভাঙে সকাল সাড়ে ৯টার দিকে। ঘুম ভাঙার পর থেকেই তাঁরা ছেলেসন্তানটিকে দেখতে পাননি।

নার্স যুথিকা বলেন, ‘যাকে চোর সন্দেহ করা হচ্ছে সেই মহিলা সানজিদার সঙ্গেই থাকতেন। ওই মহিলাকে তাদের আত্মীয় মনে করেছিলাম। আগের দিন ওই মহিলা নবজাতককে নিয়ে রোদ পোহাতেও গেছেন। গতকালও তেমনই ভাবছিলাম।


মন্তব্য