kalerkantho


চট্টগ্রামে খণ্ডিত পা উদ্ধার ও ব্যক্তি নিখোঁজে চাঞ্চল্য

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

১৮ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



চট্টগ্রাম মহানগরীর হালিশহরে দুই দিনে তিনটি মানব অঙ্গ উদ্ধারের ঘটনাটিকে হত্যাকাণ্ড হিসেবে সন্দেহ করা হচ্ছে। পুলিশের আশঙ্কা কেউ কেউ খুন হয়ে থাকতে পারে। এর মধ্যে এক ব্যক্তি নিখোঁজ হওয়ার ঘটনায় থানায় জিডি হলে নতুন করে চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে।

পুলিশ জানায়, নগরীর হালিশহর থানার বড়পোল ও ছোটপোল এলাকা থেকে গত সোমবার থেকে বুধবার পর্যন্ত দুই দফায় দুটি পা ও একটি ঊরু উদ্ধার করে হালিশহর থানা পুলিশ। এ ঘটনার পর পুলিশ কর্মকর্তারা আশঙ্কা করছেন, কেউ কেউ খুন হয়েছেন। পুলিশ সম্ভাব্য খুনের রহস্য উন্মোচনে তদন্ত শুরু করেছে।

অন্যদিকে চার দিন আগে নগরীর হালিশহর থানা এলাকার মো. নাছির উদ্দিন (৩৮) নামের এক ব্যক্তি নিখোঁজ হয়েছেন মর্মে থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি হয়েছে। উদ্ধারকৃত মানব অঙ্গের সঙ্গে নিখোঁজ নাছিরের দেহের মিল আছে কি না খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের (সিএমপি) অতিরিক্ত উপকমিশনার (পশ্চিম) আরেফিন জুয়েল কালের কণ্ঠকে জানান, গত সোমবার দুপুরে ছোটপুল এলাকার একটি নালা থেকে পলিথিন মোড়ানো একটি পা উদ্ধার হয়। এটি ছিল বাঁ পা। প্রথমে ধারণা হয়েছিল কোনো হাসপাতালে অপারেশনের পর পা বিছিন্ন করে ফেলে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু পরবর্তী সময় একই থানা এলাকার নালা থেকে ঊরু উদ্ধার হয়। সর্বশেষ বুধবার সন্ধ্যায় বড়পোল এলাকার একটি নালা থেকে উদ্ধার হয় আরো একটি পা। এটি ডান পা। বাঁ ও ডান পা এবং ঊরুর একটি অংশ উদ্ধারের পর ধারণা করা হচ্ছে, আশপাশে খুনের ঘটনা ঘটেছে। খুনিরা নিশ্চয়ই কাউকে হত্যা করে শরীরের বিভিন্ন অংশ টুকরো করে নালায় ফেলেছে।

এক প্রশ্নের জবাবে উপকমিশনার বলেন, হালিশহর থানায় মো. নাছির উদ্দিন (৩৮) নামের একজন গাড়িচালক নিখোঁজ হয়েছেন বলে জিডি করা হয়েছে। ওই চালককে উদ্ধার করতে পুলিশ কাজ করছে। কিন্তু এর সঙ্গে মানবদেহের অঙ্গ উদ্ধারের কোনো যোগসূত্র আছে কি না তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তিনি বলেন, ‘দুই পা এবং ঊরু উদ্ধারের পর সেগুলো মর্গে পাঠানো হয়েছে। আর নিখোঁজ হওয়া চালক নাছিরের খোঁজও করা হচ্ছে। ’


মন্তব্য