kalerkantho


আদালত অবমাননা

দুই মন্ত্রীকে ২০ মার্চ হাজির হতে নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৬ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



প্রধান বিচারপতি এবং বিচারাধীন মামলা নিয়ে মন্তব্যের সূত্রে গতকাল সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে হাজির হয়ে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইলেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। বিদেশ সফরে থাকা খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম আইনজীবীর মাধ্যমে লিখিত আবেদনে নিঃশর্ত ক্ষমা চেয়েছেন। তাঁর পক্ষে করা সময় আবেদন মঞ্জুর করে আপিল বিভাগ দুই মন্ত্রীকেই ২০ মার্চ আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।

প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের ৯ বিচারপতির ফুল কোর্ট গতকাল দুই মন্ত্রীকে ২০ মার্চ আদালতে হাজির হওয়ার এ আদেশ দেন। প্রধান বিচারপতি ছাড়া এ আদালতে আছেন বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহহাব মিঞা, বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানা, বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন, বিচারপতি মো. ইমান আলী, বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী, বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দার, বিচারপতি নিজামুল হক ও বিচারপতি মোহাম্মদ বজলুর রহমান।

গত ৫ মার্চ একাত্তরের ঘাতক-দালাল নির্মূল কমিটি আয়োজিত এক গোলটেবিল আলোচনায় প্রধান বিচারপতি সম্পর্কে মন্তব্য করেন খাদ্যমন্ত্রী ও মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী। মুক্তিযুদ্ধের সময় মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াত নেতা মীর কাসেম আলীর মামলা আপিল বিভাগে বিচারাধীন থাকাবস্থায় ওই মামলা এবং প্রধান বিচারপতিকে জড়িয়ে তাঁরা মন্তব্য করেন। এ কারণে ৮ মার্চ আপিল বিভাগ দুই মন্ত্রীকে তলব করেন। একই সঙ্গে আদালত অবমাননার দায়ে কেন তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে না জানতে চেয়ে ১৪ মার্চের মধ্যে ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়। নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই দুই মন্ত্রী নিঃশর্ত ক্ষমা চেয়ে সোমবার আপিল বিভাগের সংশ্লিষ্ট শাখায় আইনজীবীর মাধ্যমে পৃথক দুটি আবেদন দাখিল করেন। গতকাল সকালে আপিল বিভাগে হাজির হন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। এ সময় আইনজীবী হিসেবে তাঁর সঙ্গে ছিলেন ব্যারিস্টার রফিক-উল হক, অ্যাডভোকেট আবদুল বাসেত মজুমদার, আবুল হোসেন,  সৈয়দ মামুন মাহবুব প্রমুখ।

আপিল বিভাগের ৯ জন বিচারক এজলাসে এলে মন্ত্রীর পক্ষে ব্যারিস্টার রফিক-উল হক আদালতে বলেন, আদালতের আদেশে সম্মান দেখিয়ে মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক হাজির হয়েছেন। তিনি লিখিতভাবে নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা করেছেন। এ সময় প্রধান বিচারপতি বলেন, আরেক আদালত অবমাননাকারী কোথায়? তখন খাদ্যমন্ত্রীর পক্ষে অ্যাডভোকেট আবদুল বাসেত মজুমদার বলেন, বিশ্ব খাদ্য সংস্থার একটি আঞ্চলিক সম্মেলন ও চিকিৎসার জন্য দেশের বাইরে রয়েছেন। এ জন্য তিনি আজ আদালতে হাজির হতে পারেননি। তবে তিনি আবেদনে নিঃশর্তভাবে ক্ষমা প্রার্থনা করেছেন।


মন্তব্য