kalerkantho


ঝিনাইদহে হোমিও চিকিৎসককে হত্যা

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি   

১৬ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে একজন হোমিও চিকিৎসককে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। গত সোমবার রাত পৌনে ১১টার দিকে উপজেলা শহরের কৃষি কার্যালয়পাড়ার রাস্তায় এই হত্যাকাণ্ড ঘটে।

নিহত এই চিকিৎসকের নাম আবদুর রাজ্জাক। তিনি উপজেলার খড়াশুনি গ্রামের হাশেম আলীর ছেলে। তাঁর প্রতি আগে থেকেই হুমকি ছিল বলে পরিবারের সদস্যরা জানান।

এদিকে এ রকম আরো কয়েকটি হত্যাকাণ্ডের মতো এই ঘটনায়ও মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট (আইএস) দায় স্বীকার করেছে বলে খবর দিয়েছে সাইট ইন্টেলিজেন্স গ্রুপ নামের একটি অনলাইন প্রতিষ্ঠান। এই প্রতিষ্ঠানটি জঙ্গি হুমকি নজরদারি করে থাকে। সাইটের ইন্টেলিজেন্সের দাবি অনুযায়ী, আবদুর রাজ্জাক শিয়া মতাবলম্বী।

তবে ঝিনাইদহ পুলিশ বলছে, আইএসের এই দাবি সত্য নয়। এই হত্যাকাণ্ডে আইএস জড়িত এমনটা মনে করছে না তারা। রাজ্জাকের পরিবার বলেছে, তারা সুন্নি মতাবলম্বী। অন্য ঘটনাগুলোর ক্ষেত্রেও আইএসের দাবির কোনো সত্যতা পাওয়া যায়নি।

হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে ঝিনাইদহের পুলিশ সুপার আলতাফ হোসেন কালের কণ্ঠকে বলেন, ব্যক্তিগত শত্রুতার জের ধরে হোমিও চিকিৎসক রাজ্জাক খুন হয়ে থাকতে পারেন। এ ধরনের একটি সূত্র ধরেই তাঁরা তদন্ত করছেন।

গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে রাজ্জাকের ভাই নূর ইসলাম বাদী হয়ে কালীগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। তবে এ ঘটনায় এখনো পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি।  

কালীগঞ্জ থানার ওসি আনোয়ার হোসেন বলেন, কালীগঞ্জ উপজেলা শহরের নিমতলা বাসস্ট্যান্ড উপজেলা মসজিদ মার্কেটে নিজস্ব চেম্বার বন্ধ করে রাতে হোমিও চিকিৎসক আবদুর রাজ্জাক শহরের কৃষি কার্যালয়পাড়ার বাসায় ফিরছিলেন। রাত পৌনে ১১টার দিকে বাসার কাছাকাছি পৌঁছলে দুর্বৃত্তরা তাঁর ওপর হামলা চালায় এবং ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে রাস্তার ওপর ফেলে রেখে যায়।

ওসি জানান, পথচারীদের কাছ থেকে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে রাজ্জাকের লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

নিহতের ভাই নূর আলী সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমার ভাইয়ের সঙ্গে প্রকাশ্যে কারো কোনো দ্বন্দ্ব ছিল না। কারো সঙ্গে গোপনীয় কোনো দ্বন্দ্ব ছিল কি না তা তিনি কখনো আমাদের বলেননি। আমাদের পরিবার সুন্নি মতের অনুসারী। আমার ভাই শিয়া মতবাদে বিশ্বাসী ছিলেন না। ’

রাজ্জাকের স্ত্রী শাহানাজ পারভিন জানান, বেশ কয়েক মাস আগে থেকে আমার স্বামীকে ফোনে কে বা কারা হুমকি দিত। কারা হুমকি দিচ্ছে তা তিনি কখনো আমার কাছে প্রকাশ করেননি। তিনি সব সময় আমাকে সাবধানে থাকতে বলতেন। ’


মন্তব্য