kalerkantho


সংঘর্ষ হামলা অব্যাহত বগুড়ায় একজন নিহত

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৬ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



সংঘর্ষ হামলা অব্যাহত বগুড়ায় একজন নিহত

ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন যত এগিয়ে আসছে দলীয় প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে সহিংসতা আরো বাড়ছে। গত সোমবার রাতে বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার বুড়িগঞ্জে ইউনিয়নে প্রার্থীদের দুই পক্ষের সংঘর্ষে একজন নিহত হয়েছেন।

তাঁর নাম মাহাতাব আলী। তিনি আওয়ামী লীগ প্রার্থী আব্দুল গফুরের ভাগ্নে। এ ঘটনায় গতকাল মঙ্গলবার ১১ জনকে আটক করেছে পুলিশ। এ নিয়ে নির্বাচনী সহিংসতায় ছয়জনের প্রাণহানির ঘটনা ঘটল।

এদিকে সোমবার রাত থেকে গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত সাতক্ষীরা, লালমনিরহাট, পটুয়াখালী, মুন্সীগঞ্জ, শেরপুর ও বরিশালে প্রার্থীদের দুই পক্ষে সংঘর্ষ হয়েছে। এসব ঘটনায় ৪৮ জন আহত হয়েছে। একই সঙ্গে নির্বাচনী অফিসে হামলা, মোটরসাইকেল ভাঙচুর করে আগুন দেওয়াসহ নানা সহিংসতার খবর পাওয়া গেছে। বিস্তারিত আমাদের আঞ্চলিক অফিস, নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে—

বগুড়ায় একজন নিহত : নির্বাচনী অফিস স্থাপন করাকে কেন্দ্র করে সোমবার রাতে বগুড়ার শিবগঞ্জের বুড়িগঞ্জে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকদের সংঘর্ষ হয়। এতে মাহাতাব আলী নামের একজন নিহত ও ১১ জন আহত হয়।

নিহত মাহাতাব আওয়ামী লীগ প্রার্থী আব্দুল গফুরের ভাগ্নে ও উপজেলা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির পরিচালক ছিলেন। অভিযোগ রয়েছে, বিএনপি প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকরা এই হত্যা করেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত সোমবার প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক বরাদ্দ করা হয়। এর পর থেকেই বুড়িগঞ্জ আওয়ামী লীগ ও বিএনপি প্রার্থীর নির্বাচনী অফিস স্থাপন নিয়ে দ্বন্দ্ব দেখা দেয়। রাত ৮টার দিকে আওয়ামী লীগ প্রার্থী আব্দুল গফুরের ছেলেসহ কয়েকজন সমর্থক জামতলী বাজারে অফিস করতে গেলে বিএনপি প্রার্থী ওবায়দুর রহমানের সমর্থকদের সঙ্গে তাদের বাগিবতণ্ডা হয়। পরে রাত সাড়ে ১১টার দিকে মাহাতাব আলীসহ কয়েকজনের ওপর হামলা চালানো হয়। এ সময় ওবায়দুলের সমর্থকদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে মাহাতাব, মোজাফফর ও আমিরুল গুরুতর আহত হয়। পরে   মাহাতাবকে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে তিনি মারা যান।

এদিকে সাতক্ষীরার দেবহাটায় আওয়ামী লীগ প্রার্থী আসাদুল হক ও বিদ্রোহী প্রার্থী ইমাদুল ইসলামের কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এতে উভয় পক্ষের ১৪ জন আহত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে কুলিয়া ব্রিজ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। লালমনিরহাটের হাতীবান্ধার সানিয়াজানে আওয়ামী লীগ প্রার্থী আবুল হাশেম তালুকদার ও বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুল গফুরের কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এতে অন্তত আটজন আহত হয়েছে। পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালীর চরমন্তাজ ইউনিয়নে দুই ইউপি সদস্য প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংর্ঘষ হয়েছে। এতে উভয় পক্ষের ১৫ জন আহত হয়েছে। মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানে বিএনপি প্রার্থীর গাড়িবহরে হামলা ও গাড়ি ভাঙচুর করেছে সন্ত্রাসীরা। শেরপুরের নকলার উরফা ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী নূরে আলম তালুকদার ভূট্টোর নির্বাচনী অফিসে ভাঙচুর করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। বরিশালের বাকেরগঞ্জের রঙ্গশ্রী ইউনিয়নে বিএনপি প্রার্থী মজিবুর রহমহান মোল্লার গণসংযোগে হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল বিকেল ৫টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।


মন্তব্য