kalerkantho


বন্ড সুবিধার অপব্যবহার

ডুপ্লেক্স বোর্ডে শুল্ক ফাঁকি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৫ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



ব্যবসা বন্ধ থাকলেও বন্ডেড ওয়্যারহাউস সুবিধার অপব্যবহার করে ডুপ্লেক্স বোর্ড ও গার্মেন্ট শিল্পে প্যাকেজিংয়ের উপকরণ আমদানি করছে কিছু প্রতিষ্ঠান। গতকাল সোমবার রাজধানীর উত্তরায় অভিযান চালিয়ে শুল্ক গোয়েন্দারা চার কোটি ২০ লাখ টাকার মালামাল শনাক্ত করেছেন, যা রপ্তানির নামে এনে খোলাবাজারে বিক্রি হয়েছে বলে সন্দেহ।

এর মাধ্যমে প্রায় দেড় কোটি টাকার শুল্ক ফাঁকি দেওয়া হয়েছে।

শুল্ক গোয়েন্দা কর্মকর্তারা জানান, মার্চের প্রথম সপ্তাহে দুটি চালানে ২৭ টন গামটেইক ও ৪৯ টন ডুপ্লেক্স বোর্ড আমদানি করে প্রমিজ ইন্টারন্যাশনাল নামের একটি প্রতিষ্ঠান। গতকাল সন্ধ্যায় আজমপুরের দেওয়ান মার্কেটে গিয়ে প্রতিষ্ঠানটি বন্ধ পাওয়া যায়। বন্ড সুবিধার অপব্যবহার করে আমদানি করা ওই সব পণ্যের বাজারমূল্য প্রায় দুই কোটি টাকা। প্রায় ৩০ লাখ টাকার শুল্ক বাঁচাতে এ পথ বেছে নিয়েছে অসাধু ব্যবসায়ীরা।

তুরাগের রাজাবড়ি এলাকায় তরী প্যাকেজিং নামের আরেকটি প্রতিষ্ঠানের সন্ধান পায় শুল্ক গোয়েন্দারা। প্রতিষ্ঠানটি রপ্তানি শিল্পের নামে শুল্কমুক্ত সুবিধায় দুই কোটি ২০ লাখ টাকার পণ্য এনে খোলাবাজারে বিক্রি করেছে বলে জানা যায়। এতে শুল্ক ফাঁকি দেওয়া হয়েছে এক কোটি ১১ লাখ টাকা। রাতে সেখানে অভিযান চলছিল।

অভিযানে ছিলেন সহকারী পরিচালক আরজিনা খাতুন ও তারেক মাহমুদসহ শুল্ক গোয়েন্দা অধিদপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।  


মন্তব্য