kalerkantho


হজ ব্যবস্থাপনায় অনিয়ম

৬৮ এজেন্সিকে শাস্তি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৪ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



এি বছর হজের সময় নানা অনিয়মের দায়ে ৬৮টি বেসরকারি হজ এজেন্সিকে বিভিন্ন ধরনের শাস্তি দিয়েছে ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়। এর মধ্যে ১০টি এজেন্সির লাইসেন্স বাতিল ও ১১টি এজেন্সির লাইসেন্স দুই বছরের স্থগিতসহ বিভিন্ন অঙ্কের আর্থিক জরিমানা ও জামানত বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। বাকি এজেন্সিগুলোকে তিরস্কার এবং আর্থিক জরিমানা করা হয়েছে। গতকাল রবিবার ধর্ম মন্ত্রণালয়ের এক প্রশাসনিক আদেশে এই শাস্তির ঘোষণা দেওয়া হয়।

মন্ত্রণালয়ের সহকারী সচিব (হজ-২) মো. শহীদুল্লাহ তালুকদারের সই করা আদেশে বলা হয়, ২০১৫ সালে হজের সময় সংশ্লিষ্ট হজ এজেন্সির বিরুদ্ধে সৌদি আরব এবং বাংলাদেশের হজযাত্রী/প্রশাসনিক দল/বিভিন্ন সংস্থা অভিযোগ তোলে এবং সচিবের দপ্তরেও বিভিন্ন এজেন্সির বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠে। এসব অভিযোগ তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য সরকার পাঁচ সদস্যবিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে। এই কমিটি অভিযোগকারী ও সংশ্লিষ্ট সবার বক্তব্য গ্রহণ এবং রাজকীয় সৌদি সরকারের নির্দেশনা মোতাবেক তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেছে। তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনে সংশ্লিষ্ট এজেন্সির বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ হজ ও ওমরাহ নীতি-২০১৬-এর অনুচ্ছেদ ২৩.১-এর আলোকে সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হয়েছে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে তদন্ত কমিটির সুপারিশ মোতাবেক সরকারের পক্ষে ধর্ম মন্ত্রণালয় কর্তৃক ৬৮টি হজ এজেন্সিকে শাস্তি প্রদান করা হয়েছে বলেও আদেশে উল্লেখ করা হয়।

লাইসেন্স বাতিল হওয়া এজেন্সিগুলো হচ্ছে—ব্রাইট ট্রাভেলস, মৌসুমী এয়ার ট্রাভেলস লিমিটেড, আলভি ট্রাভেলস অ্যান্ড ট্যুরস, আটলান্টিক এভিয়েশন অ্যান্ড ট্যুরিজম, হুমায়রা হজ ট্রাভেলস, ইকরা হজ ট্যুরস অ্যান্ড ট্রাভেলস, মডেল আর্ক ইন্টারন্যাশনাল, শানিন এয়ার ইন্টারন্যাশনাল, রৌমারী ট্রাভেলস অ্যান্ড ট্যুরস এবং কে আলম ট্রাভেলস অ্যান্ড ট্যুরস। এসব এজেন্সিকে তিন থেকে ১০ লাখ টাকা পর্যন্ত আর্থিক জরিমানা এবং কয়েকটির জামানত বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।


মন্তব্য