kalerkantho


বিদ্যুৎ আসার দিনেই যাবে ব্যান্ডউইডথ

হাসিনা-মোদি টেলি কনফারেন্সের মাধ্যমে ২৩ মার্চ উদ্বোধন

বিশ্বজিৎ পাল বাবু, ব্রাহ্মণবাড়িয়া   

১৪ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের পালাটানা বিদ্যুেকন্দ্র থেকে আগামী ২৩ মার্চ বাংলাদেশে আসবে ১০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ। একই দিনে আনুষ্ঠানিকভাবে রপ্তানি শুরু হতে যাচ্ছে ১০ জিপিবিএস (গিগাবাইট পার সেকেন্ড) ব্যান্ডউইডথ। রপ্তানিকাজে বাংলাদেশের দায়িত্বপ্রাপ্ত কম্পানি বাংলাদেশ সাবমেরিন কেবল কম্পানি লিমিটেড (বিএসসিসিএল) সূত্র ব্যান্ডউইডথ রপ্তানির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের এই তথ্য কালের কণ্ঠকে নিশ্চিত করেছে।

একাধিক সূত্র জানিয়েছে, ২৩ মার্চ সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি টেলি কনফারেন্সের মাধ্যমে দুই দেশের মধ্যে বিদ্যুৎ ও ব্যান্ডউইডথ সরবরাহের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন। ত্রিপুরার আগরতলায় কিছু আনুষ্ঠানিকতা থাকলেও ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সে রকম কোনো আয়োজন থাকছে কি না তা অবশ্য নিশ্চিত হওয়া যায়নি।  

বিএসসিসিএলের ডিজিএম (অপারেশন ও মেইনটেন্যান্স) আবদুল ওয়াহাব গতকাল রবিবার মোবাইল ফোনে কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘ব্যান্ডউইডথ রপ্তানির জন্য ২৩ মার্চ দিন ঠিক করা হয়েছে। সে অনুযায়ী সব প্রস্তুতি নেওয়া আছে। ’ এর আগে বাংলাদেশের বিদ্যুৎ বিভাগ এবং ত্রিপুরার বিদ্যুৎ ও পরিবহন মন্ত্রণালয় ২৩ মার্চ আনুষ্ঠানিকভাবে ভারত থেকে বাংলাদেশে ১০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ রপ্তানির বিষয়টি নিশ্চিত করে।

এদিকে ত্রিপুরা থেকে প্রকাশিত ‘দৈনিক দেশের কথা’র খবর অনুযায়ী, সেখানকার দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠান ভারত সঞ্চার নিগমের (বিএসএনএল) চিফ জেনারেল ম্যানেজার এ কে সাক্সেনা গত শনিবার আগরতলায় আসেন। তিনি ব্যান্ডউইডথ সরবরাহ নিয়ে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের সঙ্গে কথা বলেন। ২৩ মার্চ ব্যান্ডউইডথ রপ্তানির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হবে বলেও পত্রিকাটির খবরে উল্লেখ করা হয়।  

জানা গেছে, আন্তর্জাতিক সাবমেরিন কেবল কনসোর্টিয়াম সিমিউ-৪-এর আওতায় বাংলাদেশ ২০০ জিবিপিএস ব্যান্ডউইডথ পাচ্ছে। এর মধ্যে ৩০ জিবিপিএস বাংলাদেশ ব্যবহার করলেও বাকিটা অব্যবহূতই থেকে যাচ্ছে। সেখান থেকেই ভারতে ১০ জিবিপিএস রপ্তানির সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। এ থেকে বাংলাদেশ বছরে আয় করবে সাত কোটি রুপি।

বিএসসিসিএল সূত্র জানায়, ভারতকে আপাতত ১০ জিবিপিএস ব্যান্ডউইডথ দেওয়া হবে। তবে তারা চাইলে ৪০ জিবিপিএস পর্যন্ত দেওয়া সম্ভব। কিছু অবকাঠামো ও টেকনিক্যাল বিষয় ছাড়া এখনই বাংলাদেশের পক্ষে ৪০ জিবিপিএস দেওয়া সম্ভব।


মন্তব্য