kalerkantho


পারিবারিক কলহের জের

রংপুরে দুই গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

রংপুর অফিস   

১৩ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



রংপুরে পৃথক ঘটনায় লাকি বানু (২২) ও শাবানা বেগম (২২) নামের দুই গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল শনিবার সকালে জেলার বদরগঞ্জ উপজেলার সর্দারপাড়া গ্রাম থেকে লাকির এবং শুক্রবার রাতে মিঠাপুকুর উপজেলার গয়েশপুর গ্রাম থেকে শাবানার লাশ উদ্ধার করা হয়। পরিবার ও স্থানীয়দের অভিযোগ, স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজন দুজনকে পিটিয়ে হত্যা করেছে। পুলিশ লাকির শাশুড়িকে আটক করেছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বদরগঞ্জ উপজেলার কুতুবপুর ইউনিয়নের সর্দারপাড়া গ্রামের তহসিন মিয়ার ছেলে সাজেদুল হকের সঙ্গে প্রায় আড়াই বছর আগে বিয়ে হয় রংপুর মডার্ন এলাকার আনিছার রহমানের মেয়ে লাকি বানুর। বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের বকেয়া ১০ হাজার টাকার জন্য শাশুড়ি ছাহেরা বেগম তাঁকে সব সময় নির্যাতন করতেন। গতকাল সকাল ১১টার দিকে শাশুড়ি ছাহেরার সঙ্গে লাকির ঝগড়া হয়। স্থানীয়দের অভিযোগ, একপর্যায়ে স্বামী সাজেদুল, শাশুড়ি ছাহেরা বেগম ও আত্মীয়রা মিলে লাকিকে পিটিয়ে হত্যা করে। পরে তারা এলাকায় প্রচার করে লাকি গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। এতে এলাকাবাসীর সন্দেহ হলে ছাহেরাকে আটক করে পুলিশে খবর দেওয়া হয়। এর আগেই লাকির স্বামী সাজেদুল ইসলামসহ অন্যরা বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যায়।

খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে রংপুর মর্গে পাঠায়। এ ঘটনায় হত্যা মামলা হয়েছে।

অন্যদিকে মিঠাপুকুর উপজেলার ইমাদপুর ইউনিয়নের গয়েশপুর সোনারপাড়া গ্রামে শুক্রবার রাতে গৃহবধূ শাবানা বেগমের সঙ্গে স্বামী আব্দুল জিলানীর ঝগড়া হয়। পরিবারের অভিযোগ, একপর্যায়ে জিলানী লাঠি দিয়ে বেধড়ক মারপিট শুরু করলে শাবানা বেগম ঘটনাস্থলেই মারা যান। ঘটনাটি জানাজানি হলে জিলানী ওই রাতে বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যায়। পরে শাবানা বেগমের বাবা সৈয়দ আলী বাদী হয়ে মিঠাপুকুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পুলিশ জিলানীর বাবা আবুল হোসেনকে গ্রেপ্তার করেছে।


মন্তব্য