যুদ্ধাপরাধীসহ অপরাধীদের ডাটাবেইস-334933 | খবর | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

বুধবার । ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১৩ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৫ জিলহজ ১৪৩৭


যুদ্ধাপরাধীসহ অপরাধীদের ডাটাবেইস তৈরির নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১২ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



একাত্তরের যুদ্ধাপরাধ ও অন্যান্য চাঞ্চল্যকর মামলার আসামিদের ডাটাবেইস তৈরির নির্দেশ দিয়েছেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ মামলার মনিটরিং সেলের প্রধান। পাশাপাশি দেশ-বিদেশে পলাতক আসামিদের গ্রেপ্তার করতে না পারার কারণ এবং কোনো প্রতিবন্ধকতা থাকলে তা মনিটরিং সেলকে জানানোর জন্য সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, গত ১৭ ফেব্রুয়ারি মনিটরিং সেলের চতুর্থ সভায় এসব নির্দেশনা দেওয়া হয়। সেলটির পুরো নাম ‘আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের বিভিন্ন মামলাসহ রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ মামলার পলাতক ও গ্রেপ্তারকৃত আসামিদের মৃত্যুদণ্ড/সাজা কার্যক্রম মনিটরিং করার লক্ষ্যে গঠিত মনিটরিং সেল।’ এ সেলের প্রধান স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (রাজনৈতিক) আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিম। ওই সভায় তাঁর সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্র, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

সূত্র জানায়, সভায় চাঞ্চল্যকর বিশ্বজিৎ হত্যা মামলাসহ কয়েকটি মামলা নিয়ে আলোচনা হয়। বিশ্বজিৎ হত্যা মামলার দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদের মধ্যে ১৩ জন পলাতক রয়েছেন। পলাতকদের এখনো গ্রেপ্তার করতে না পারায় উপস্থিত কর্মকর্তারা অসন্তোষ প্রকাশ করেন। তবে পুলিশের প্রতিনিধি সভায় জানান, পলাতকদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। শুধু বিশ্বজিৎ হত্যা মামলাই নয়, সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এম এস কিবরিয়া, আহসান উল্লাহ মাস্টার হত্যা মামলার আসামি ও ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত যুদ্ধাপরাধী জামায়াত নেতা আবুল কালাম আজাদ ওরফে বাচ্চু রাজাকারের বিষয়েও আলোচনা হয়।

সূত্র জানায়, সভায় আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে চলমান মামলাসহ রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ ও চাঞ্চল্যকর মামলার মোট কতজনের সাজা হয়েছে, মোট আসামি ও গ্রেপ্তারকৃত আসামির সংখ্যা, পলাতক আসামিদের মধ্যে কতজনের মৃত্যুদণ্ড বা বিভিন্ন মেয়াদে সাজা হয়েছে এবং প্রত্যেকের নামের পাশে সাজার পরিমাণ উল্লেখ করে ডাটাবেইস তৈরির নির্দেশ দেওয়া হয়।

পুলিশ সদর দপ্তরের প্রতিনিধি মোহাম্মদ উল্যাহ জানান, পলাতক আসামিদের গ্রেপ্তারে তত্পরতা চালানো হচ্ছে।

মন্তব্য