kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


অফিসার্স কোয়ার্টারে গৃহকর্মীর মৃত্যু

পুলিশের দাবি, হত্যাকাণ্ড নয়

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১২ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



রাজধানীর কাফরুলে ন্যাম গার্ডেন অফিসার্স কোয়ার্টারে কিশোরী গৃহকর্মী জনিয়ার রহস্যজনক মৃত্যুর পর হত্যার অভিযোগ উঠলেও গত পাঁচ দিনে হত্যা মামলা নেয়নি পুলিশ। স্বজনরা অভিযোগ করছে, প্রাথমিকভাবে হত্যার আলামত পাওয়া গেছে।

এরপর নিহত জনিয়ার বাবা হত্যার অভিযোগ দায়ের করলেও পুলিশ তা অপমৃত্যু মামলা হিসেবে নথিভুক্ত করেছে। এদিকে আলামত দেখে পুলিশ কর্মকর্তাদেরও ধারণা, জনিয়াকে হত্যা করা হয়েছে। তবে ময়নাতদন্তে বিষয়টি নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত তাঁরা মামলা নেবেন না।

নিহত জনিয়ার পরিবারের অভিযোগ, গৃহকর্তা যুগ্ম সচিব হওয়ায় পুলিশ হত্যা মামলা নিতে গড়িমসি করছে। জনিয়ার বাবা ওসমান গণি অভিযোগ করে বলেন, তাঁর মেয়েকে হত্যার সঙ্গে যুগ্ম সচিব আহসান হাবিব, তাঁর ছেলে রুম্মান বিন আহসান ও স্ত্রী নাজনীন আক্তার জড়িত। তাঁদের বিরুদ্ধে তিনি থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। প্রভাবশালীদের চাপে পুলিশ হত্যা মামলা নিচ্ছে না। অপমৃত্যু ও ৫৪ ধারার মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই কামরুজ্জামান জানান, গত বৃহস্পতিবার পর্যন্ত তিনজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছিল। গুরুত্বপূর্ণ কোনো তথ্য মেলেনি।

চাঞ্চল্যকর ওই ঘটনায় ন্যাম গার্ডেনের কেয়ারটেকার সিদ্দিকুর রহমান, লিফটম্যান এমদাদুল হক, রিয়াজুল হক ও সোহেল রানাকে ৫৪ ধারায় সন্দেহভাজন হিসেবে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। আদালতের নির্দেশে তাঁদের হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। অন্যদিকে যুগ্ম সচিব আহসান হাবিব, তাঁর স্ত্রী ও ছেলেকেও জিজ্ঞাসাবাদ করেছে পুলিশ।


মন্তব্য