মনোবিজ্ঞানীর সহায়তায় মাকে-334679 | খবর | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

সোমবার । ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১১ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৩ জিলহজ ১৪৩৭


বনশ্রীতে ভাই বোনের মৃত্যু

মনোবিজ্ঞানীর সহায়তায় মাকে জিজ্ঞাসাবাদ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১১ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



মনোবিজ্ঞানীর সহায়তায় মাকে জিজ্ঞাসাবাদ

রাজধানীর রামপুরায় দুই শিশুকে হত্যার ঘটনায় তাদের মা মাহফুজা মালেক জেসমিনকে গোয়েন্দা পুলিশের হেফাজতে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু হয়েছে। সন্তানদের মৃত্যুর ঘটনায় তিনি এখনো অনেক প্রশ্নের উত্তর দেননি বলে মনে করছেন গোয়েন্দা কর্মকর্তারা। দুই শিশুর মা জেসমিনকে জিজ্ঞাসাবাদের সময় মনোরোগ বিশেষজ্ঞরা উপস্থিত থাকছেন।

এদিকে দুই শিশু হত্যা মামলার তদন্ত কার্যক্রম শেষ হতেও অনেক সময় লাগবে বলে জানিয়েছে পুলিশ। ওই ঘটনায় আটক হওয়া রেস্তোরাঁর ম্যানেজার মাসুদুর রহমান এবং কর্মী আসাদুজ্জামান ও আতাউর রহমানের জামিন গতকাল বৃহস্পতিবার মঞ্জুর করেছেন ঢাকা মহানগর হাকিম তসরুজ্জামান। তবে আটক এক গৃহশিক্ষকসহ আরো তিনজনকে ঘটনার পরপরই ছেড়ে দেওয়া হয়।

আলোচিত এ ঘটনায় রামপুরা থানায় দায়ের করা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ছিলেন পরিদর্শক মুস্তাফিজুর রহমান। তিনি বলেন, থানা হেফাজতে জিজ্ঞাসাবাদের সময় দুই শিশুকে হত্যার দাবি করেছেন মা নিজেই। তদন্তেও মায়ের দাবি সঠিক মনে হয়েছে। দুই সন্তানকে হত্যার কারণ হিসেবে মা জেসমিন বারবার দাবি করছেন, দুই শিশুর লেখাপড়ার ভবিষ্যৎ চিন্তা করতেন তিনি। এ ছাড়া তাঁর (জেসমিন) দুই সন্তানের চেয়ে তাঁর ছোট বোন লিনার মেয়ে মেধাবী ছিল। তিনি নিজে ছাত্রজীবনে ছোট বোন লিনার চেয়ে মেধাবী ছিলেন। এখন সন্তানদের বেলায় তাঁর সন্তানদের চেয়ে বোনের সন্তান লেখাপড়ায় এগিয়ে যাচ্ছে। এ ছাড়া প্রতিবেশী অনেকের সন্তানকে নিজের সন্তানদের চেয়ে মেধাবী মনে করতেন জেসমিন। সন্তানদের লেখাপড়ার বিষয় ছাড়াও সংসার জীবনে নানা কারণে নিজেকে অসুখী মনে করতেন জেসমিন। বিষয়টি নিয়ে মানসিক চাপ তাঁকে অস্বাভাবিকতার দিকে ঠেলে দেয়। তদন্তসংশ্লিষ্টরা বলছেন, ‘এখন এ বিষয়গুলোই আমরা খতিয়ে দেখছি। মনোবিজ্ঞানীরা কী বলেন সেগুলোও আমরা আমলে নিব।’

২৯ ফেব্রুয়ারি বেইলি রোডের ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থী নুশরাত জাহান অরণী (১৪) ও হলিক্রিসেন্ট স্কুলের নার্সারির ছাত্র আলভী আমান (৬) মারা যায়। এ ঘটনায় দুই শিশুর বাবা আমান উল্লাহ, মা মাহফুজা মালেক জেসমিন ও খালা আফরোজা মালেককে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ঢাকায় আনে র‌্যাব। এরপর রামপুরা থানায় শিশুদের বাবা আমান উল্লাহ বাদী হয়ে জেসমিনকে আসামি করে মামলা করেন। প্রথম দফায় গত ৪ মার্চ জেসমিনকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি পায় পুলিশ। ওই রিমান্ড শেষে গত বুধবার জেসমিনকে ফের আদালতে হাজির করা হয়। আদালত মামলাটির তদন্তের ভার ডিবিকে দেয়। সেই সঙ্গে জেসমিনকে ডিবি হেফাজতে মনোরোগ বিশেষজ্ঞদের মাধ্যমে জিজ্ঞাসাবাদ করতেও বলা হয়।

প্রথমে পরিবারের অভিযোগ ছিল, চাইনিজ রেস্টুরেন্টের খাবার খেয়ে ওই শিশুদের মৃত্যু হয়েছে। তবে এ কথা বলা হলেও মা-বাবা শিশুদের লাশের ময়নাতদন্ত করাতে চাননি। ঘটনার পরদিন ফরেনসিক বিশেষজ্ঞ ডা. প্রদীপ বিশ্বাস জানান, শ্বাসরোধ করে শিশু দুটিকে হত্যা করার আলামত মিলেছে।

মন্তব্য