kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ঝিনাইদহে কয়লা তৈরির কারখানায় অগ্নিকাণ্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা ও ঝিনাইদহ প্রতিনিধি   

১১ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



ঝিনাইদহের অচিন্তনগর গ্রামে তাজী এ্যাগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ নামের একটি চারকোল ডাস্ট কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে কনটেইনারে আগুন ধরে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

এতে কারখানার কোয়ালিটি কন্ট্রোলার চীনা নাগরিক ফাংসহ চারজন গুরুতর দগ্ধ হন। এর মধ্যে তিনজনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে। আগুনে কারখানার ৫০ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের আবাসিক চিকিৎসক ডা. পার্থ শংকর পাল কালের কণ্ঠকে জানান, চীনের নাগরিক ফাংয়ের শরীরের ৬৮ শতাংশ পুড়ে গেছে। তাঁকে আইসিইউতে রাখা হয়েছে। এ ছাড়া শ্রমিক জালাল উদ্দিনের শরীরের ৪০ শতাংশ ও কো-অর্ডিনেটর জুবায়ের হোসেনের ১ শতাংশ পুড়ে গেছে। তাঁদেরও পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।  

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, গতকাল সকাল সাড়ে ৬টার দিকে তাজী এ্যাগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজে চারকোল ডাস্ট ভর্তি কনটেইনারের ভেতরে আগুন ধরে যায়। মুহূর্তে কারখানায় আগুন ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ঝিনাইদহ, শৈলকুপা, মাগুরা ও যশোর থেকে চারটি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। এরপর ছয় ঘণ্টা অভিযান চালিয়ে দুপুর ১২টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এতে কারখানার কোয়ালিটি কন্ট্রোলার চীনের নাগরিক ফাং, শ্রমিক জালাল উদ্দিন, কো-অর্ডিনেটর জুবায়ের হোসেন ও সিকিউরিটি গার্ড মনির হোসেন মারাত্মকভাবে দগ্ধ হন। দগ্ধদের উদ্ধার করে প্রথমে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে ফাংকে হেলিকপ্টারে এবং জালাল উদ্দিন ও জুবায়েরকে অ্যাম্বুল্যান্সে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সিকিউরিটি গার্ড মনির হোসেন বর্তমানে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।

যশোর ফায়ার স্টেশনের সহকারী পরিচালক পরিমল চন্দ্র কুণ্ডু জানান, গরম কয়লাভর্তি একটি কনটেইনারে ধোঁয়া বের হতে দেখে কারখানার লোকজন কনটেইনারটি খোলেন। এ সময় কনটেইনারের ভেতর থেকে আসা আগুনে চারজন ঝলসে যান।

কারখানাটির কাঁচামাল সরবরাহকারী রবিউল ইসলাম জানান, বাংলাদেশের এসকেআরপি ট্রেড সিন্ডিকেট গ্রুপ অব কম্পানি ও চায়না কম্পানি মি. উ যৌথভাবে অচিন্তনগর গ্রামে একটি চারকোল ডাস্ট তৈরির কারখানা প্রতিষ্ঠা করে। গত বছর থেকে তাজী এ্যাগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ নামের ওই কারখানাটি উত্পাদন শুরু করে। কারখানায় বিশেষ চুল্লিতে পাটকাঠি পুড়িয়ে বিশেষ কায়দায় চারকোল ডাস্ট (কয়লা) তৈরি করা হয়। সেই কয়লা পাঠানো হয় চীনে। এ চারকোল ডাস্ট বিভিন্ন ধরনের ব্যাটারি তৈরিতে ব্যবহার করা হয়। এই কারখানাটিতে চীনের নাগরিকসহ অর্ধশত বাংলাদেশি শ্রমিক ও কর্মচারী কাজ করেন।

গতকাল দুপুরে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের ডাক্তার জাহিদুর রহমান জানান, অগ্নিদগ্ধ চারজনের প্রত্যেকের শ্বাসনালি পুড়ে গেছে। তাঁদের মধ্যে বিদেশি নাগরিক ফাংয়ের শ্বাসনালিসহ শরীরের ৫০ শতাংশ আগুনে পুড়ে গেছে। অগ্নিদগ্ধদের মধ্যে ফাং, জালাল উদ্দিন ও জুবায়ের হোসেকে জাতীয় বার্ন এবং প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে রেফার্ড করা হয়েছে।


মন্তব্য