এবার সব কাজ ই-হজ সিস্টেমে করতে হবে-333849 | খবর | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

শনিবার । ১ অক্টোবর ২০১৬। ১৬ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৮ জিলহজ ১৪৩৭


সৌদি নির্দেশনা

এবার সব কাজ ই-হজ সিস্টেমে করতে হবে

মক্কার হজ অফিস চিঠি দিয়ে জানিয়েছে ধর্ম মন্ত্রণালয়কে

মোশতাক আহমদ   

৯ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



হজ ব্যবস্থাপনার সুষ্ঠুতা নিশ্চিত করতে এবার সব কাজ ই-হজ সিস্টেমে করতে বলেছে সৌদি আরব সরকার। হজ পালনেচ্ছু ব্যক্তিদের সঠিক হিসাব রাখতে, তাঁদের জন্য সেবা নিশ্চিত করতে গত বছর চালু করা হয় এ ব্যবস্থা। তবে কিছু বিষয়ে ছাড় দেওয়া হয়েছিল।

সৌদি সরকারের পক্ষ থেকে সংশ্লিষ্ট দেশগুলোকে এ বিষয়ে অবহিত করা হয়েছে। মক্কায় বাংলাদেশ হজ অফিসের কাউন্সেলর মো. আসাদুজ্জামান সম্প্রতি ধর্ম মন্ত্রণালয়কে বিষয়টি চিঠি দিয়ে জানিয়েছেন।

ভারপ্রাপ্ত ধর্মসচিব মো. আব্দুল জলিল কালের কণ্ঠকে বলেন, নতুন পদ্ধতির নিরিখেই এ বছর হজযাত্রীদের প্রাক-নিবন্ধন শুরু করা হবে। শিগগির এ কার্যক্রম শুরু হবে। তিনি জানান, বাংলাদেশে ডিজিটাল ব্যবস্থা চালু রয়েছে। ফলে সৌদি সরকারের নতুন ব্যবস্থাপনার সঙ্গে খাপ খাওয়াতে সমস্যা হবে না।

সূত্র জানায়, এ বছর ই-হজ সিস্টেমে সংশ্লিষ্ট সব কাজ হবে। আর্থিক লেনদেন ই-পেমেন্ট প্রক্রিয়ায় হবে। সৌদি আরবে বাড়িভাড়া, ক্যাটারিং সার্ভিস ফি-সহ সবকিছু ই-পেমেন্ট সিস্টেমে করতে হবে। সব কাজ যাতে ই-হজ সিস্টেমে হয় সে জন্য গত ১ মার্চ ধর্ম মন্ত্রণালয়কে চিঠি দিয়েছে মক্কায় বাংলাদেশ হজ অফিস। সব হজ এজেন্সিকে এ বিষয়ে অবহিত করার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে চিঠিতে।

এজেন্সিগুলোকে বাংলাদেশ থেকে নির্দিষ্ট আইবিএএনে (ইন্টারন্যাশনাল ব্যাংক অ্যাকাউন্ট নাম্বারে) টাকা পাঠাতে হবে। সৌদি আরবে বাড়িভাড়া, ক্যাটারিং সার্ভিস ফি প্রভৃতি ওই অ্যাকাউন্ট থেকে পরিশোধ করতে হবে। নগদ লেনদেন করা যাবে না। সব অর্থ পরিশোধ করার পর ‘মোফা’ পদ্ধতিতে হজযাত্রীদের ভিসা ইস্যু করা হবে।

কোনো এজেন্সি যাতে সৌদি আরবে নগদ লেনদেন না করে সে বিষয়ে তাদের সতর্ক করার জন্য ধর্ম মন্ত্রণালয়ের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছে মক্কার হজ অফিস।

ঢাকায় হজ অফিসের আইটি ইনচার্জ কবির আল মামুন জানান, গত বছরই ই-হজ সিস্টেম চালু করে সৌদি সরকার। তবে কিছু ক্ষেত্রে ছাড় দিয়েছিল। এবার সব কাজ ই-হজ সিস্টেমে করতে হবে।

সূত্র জানায়, সৌদি সরকারের নির্দেশনা পেয়ে বাংলাদেশের হজ ব্যবস্থাপনায় ব্যাপক পরিবর্তন আনা হয়েছে। প্রথমবারের মতো হজযাত্রীদের প্রাক-নিবন্ধন চালু করা হয়েছে। এ জন্য সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন অফিসের আইটি কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। অনুমোদিত হজ এজেন্সি ও ব্যাংক সংশ্লিষ্টদেরও প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। এগুলো সম্পন্ন হলে হজযাত্রীদের প্রাক-নিবন্ধন শুরু হবে।

প্রসঙ্গত, গত ১৪ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ ও সৌদি আরবের মধ্যে এ বছরের হজের জন্য চুক্তি হয়েছে। এবার বাংলাদেশ থেকে এক লাখ এক হাজার ৭৫৮ জন হজে যেতে পারবেন। ১০ হাজার ব্যক্তি সরকারি ব্যবস্থাপনায় এবং বাকিরা বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় যাবেন। আরো পাঁচ হাজার ব্যক্তিকে সুযোগ দেওয়ার জন্য সৌদি কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ জানাবে ধর্ম মন্ত্রণালয়।

মন্তব্য