kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বিনা ভোটে চেয়ারম্যান খতিয়ে দেখবে ইসি

বিশেষ প্রতিনিধি   

৮ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে বিনা ভোটে চেয়ারম্যান হওয়ার বা হতে যাওয়ার ক্ষেত্রে কোনো অনিয়ম হয়েছে কি না তা খতিয়ে দেখবে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। অনিয়মের প্রমাণ পেলে সংশ্লিষ্ট ইউপিতে পুনরায় ভোটের আয়োজন করা হবে।

গতকাল সোমবার ইসি এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ইসি সূত্র জানায়, এরই মধ্যে প্রথম ধাপে ৬২ জন বিনা ভোটে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। দ্বিতীয় ধাপে আরো ১৩টি ইউপিতে প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকায় ১৩ জন চেয়ারম্যান হওয়ার পথে রয়েছেন। তাঁরা সবাই ক্ষমতাসীন দলের। এভাবে বিনা ভোটে চেয়ারম্যান হওয়ার ক্ষেত্রে কোনো অনিয়ম হলে বা অভিযোগ থাকলে তা নথিভুক্ত করে কমিশনে পাঠানোর জন্য সংশ্লিষ্ট রিটার্নিং অফিসারদের নির্দেশনা দেওয়া হচ্ছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে নির্বাচন কমিশনার মোহাম্মদ আবু হাফিজ বলেন, বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত ইউপি থেকে যেসব অভিযোগ পাওয়া গেছে বা কোনো অনিয়মের অভিযোগ থাকলে তা খতিয়ে দেখা হবে। তিনি বলেন, সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে কমিশন যেকোনো ধরনের সিদ্ধান্ত নেবে।

ইসি সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, আগামী ২২ মার্চ অনুষ্ঠেয় প্রথম ধাপের ৭৩৪টি ইউপিতে ভোটের আগেই ৬২ জন চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ায় কমিশন বিব্রত। গতকাল প্রধান নির্বাচন কমিশনারের কক্ষে অন্য কমিশনারদের নিয়ে আলোচনায় বিষয়টি প্রাধান্য পেয়েছে। কমিশনাররা বিনা ভোটে নির্বাচিত ইউপিতে কোনো ধরনের অনিয়ম হলে সেখানে পুনঃ তফসিলের সিদ্ধান্ত নেন।

বাতিল দুই ইউপিতে আবার ভোট : আদালতের নির্দেশে কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার হ্নীলা ও হোয়াইক্যং ইউপি নির্বাচনের তফসিল বাতিল করেছিল ইসি। কিন্তু হাইকোর্টের আদেশ আপিল বিভাগে স্থগিত হয়ে যাওয়ায় গতকাল ওই দুটি ইউপিতে পুনরায় ভোটগ্রহণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে কমিশন।

ইসির দরজা সবার জন্য খোলা : নির্বাচন কমিশনার মো. শাহ নেওয়াজ বলেছেন, ‘যাঁরা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবেন, তাঁদের জন্য সমস্ত দ্বার খুলে দেওয়া হবে। ’ গতকাল শেরে বাংলানগরে নির্বাচন কমিশনে (ইসি) নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।


মন্তব্য