পুঠিয়ায় ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর বসত-333395 | খবর | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১২ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৪ জিলহজ ১৪৩৭


পুঠিয়ায় ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর বসত উচ্ছেদের চেষ্টা!

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী   

৮ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



রাজশাহীর পুঠিয়ার বাঁশবাড়ীয়া গ্রামে একটি প্রভাবশালী মহল ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর বসতভিটা উচ্ছেদের চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত মঙ্গলবার অস্ত্রের মুখে ভয়ভীতি দেখিয়ে সেখানকার প্রায় ৬০ বিঘা জমি দখলে নিয়েছে সন্ত্রাসীরা। এ নিয়ে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর বাসিন্দাদের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

বাঁশবাড়ীয়া গ্রামের ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর বাসিন্দরা অভিযোগ করে জানায়, জমিগুলো ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর পক্ষে আইনগত ডিক্রি থাকলেও স্থানীয় প্রভাবশালী মুসা ওরফে ফিরোজ আরেক প্রভাবশালী মাসুদ রানার কাছে তা বিক্রি করে দেন। এর মধ্যে গত মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে শতাধিক ক্যাডার অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে বাঁশবাড়ীয়া ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী পল্লীতে অবস্থান নেয়। তারা অস্ত্রের মুখে তাদের ভয়ভীতি দেখিয়ে আনুমানিক ৬০ বিঘা জমিতে সীমানা পিলার পুঁতে দখল করে। খবর পেয়ে পরের দিন পুঠিয়া থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আইনি সহায়তার আশ্বাস দেয়। তারা ওই পল্লী দখলের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

এ ব্যাপারে মুসা ওরফে ফিরোজ কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘বিনিময় সূত্রে পাওয়া সম্পত্তি ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর বাসিন্দারা বেআইনিভাবে দীর্ঘদিন ধরে দখল করে রেখেছে। এই সম্পত্তি নিয়ে মামলা হওয়ায় উচ্চ আদালতে আমার পক্ষে রায় রয়েছে। উচ্চ আদালতের রায় থাকার পরও আমি জমির দখল পাইনি। শেষে উপায় না দেখে বিক্রি করে দিয়েছি।’

জানতে চাইলে মাসুদ রানা জানান, ক্রয় সূত্রে তিনি জমির মালিক। তাই জমিটি দখল করার জন্য তিনি চেষ্টা করছেন। কিন্তু ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী সম্প্রদায়ের লোকজন নানাভাবে বাধা দেওয়ার চেষ্টা করছে।

এ ব্যাপারে পুঠিয়া থানার ওসি হফিজুর রহমান জানান, বিষয়টি জানার পর তাঁরা ঘটনাস্থল

পরিদর্শন  করেছেন। জমিসংক্রান্ত বিষয় হওয়ায় সেটি ভালোভাবে খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তবে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী বাসিন্দাদের আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই।

মন্তব্য