সেই পপিক্ষেত ধ্বংস ‘ধোঁকা’ খাওয়া-332619 | খবর | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

শনিবার । ১ অক্টোবর ২০১৬। ১৬ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৮ জিলহজ ১৪৩৭


সেই পপিক্ষেত ধ্বংস ‘ধোঁকা’ খাওয়া চাষি গ্রেপ্তার

রংপুর অফিস   

৬ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



রংপুরে বর্গাচাষিকে ধোঁকা দিয়ে হেরোইন তৈরির উপাদান পপি চাষের খবর প্রকাশিত হওয়ার পর পুলিশ গতকাল শনিবার ওই পপিক্ষেত ধ্বংস এবং চাষিকে গ্রেপ্তার করেছে। তবে জমির মালিক লাপাত্তা হয়ে গেছেন। গতকাল কালের কণ্ঠে ‘কৃষককে ধোঁকা দিয়ে নিষিদ্ধ পপি চাষ’ শীর্ষক একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হওয়ার পর গতকাল পুলিশ এ অভিযান চালায়।

গ্রেপ্তারকৃত বর্গাচাষির নাম মোকছেদুল হক (৩৫)। তিনি সোনারপাড়া গ্রামের আব্দুল হালিমের ছেলে। জমি মালিকের নাম শফিউল ইসলাম ওরফে খোকা মেম্বার। তিনি গ্রামের মৃত ওসমান সোনারের ছেলে। শফিউল ইসলাম কুতুবপুর ইউনিয়ন পরিষদের ১২ নম্বর ওয়ার্ডর সাবেক সদস্য। তিনি কৃষির পাশাপাশি দাদন ব্যবসায়ী হিসেবে পরিচিত।

জানা গেছে, কালের কণ্ঠে প্রতিবেদন প্রকাশের পর প্রশাসনে তোলপাড় সৃষ্টি হয়। গতকাল দুপুরে পুলিশ বদরগঞ্জ উপজেলা সদর থেকে ২৪ কিলোমিটার দূরে উপজেলার কুতুবপুর ইউনিয়নের সোনারপাড়া এলাকায় অভিযান চালায়।

ঘটনাটি এলাকায় প্রচারিত হওয়ার পর সেখানে ভিড় করতে থাকে আশপাশের মানুষ। এ সময় পুলিশ স্থানীয়দের সহায়তায় প্রায় ৪০ শতক জমিতে লাগানো ফলসহ পপিগাছ উপড়ে ফেলে। গ্রেপ্তার করা হয় বর্গচাষি মোকছেদুল হককে। পুলিশের দাবি, তাদের উপস্থিতি টের পেয়ে জমির মালিক শফিউল ইসলাম ওরফে খোকা মেম্বার বাড়ি থেকে পালিয়ে গেছে।

রংপুর মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের পরিদর্শক আবদুল মান্নানও গতকাল ঘটনাস্থলে যান। তিনি বলেন, ওই পরিমাণ (৪০ শতক) জমি থেকে কয়েক কোটি টাকার হেরোইন উত্পাদন করা সম্ভব। এই নিষিদ্ধ পপি চাষের সঙ্গে আরো কেউ জড়িত আছে কি না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

মন্তব্য