kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ভোটের মাঠে এমপি

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল   

৬ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



ভোটের মাঠে এমপি

বরিশালের বানারীপাড়ার চাখার ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কর্মীসভায় দলীয় চেয়ারম্যান প্রার্থীকে পরিচয় করিয়ে দিয়ে তাঁর পক্ষে ভোট চান সংসদ সদস্য তালুকদার মো. ইউনুস। ছবি : কালের কণ্ঠ

নির্বাচন কমিশন প্রজ্ঞাপন জারি করে সংসদ সদস্যসহ সুবিধাভোগীদের নির্বাচনী প্রচারে অংশ নেওয়া থেকে বিরত থাকতে বললেও সরকারি দলের একজন সংসদ সদস্য বরিশালে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে ভোট চেয়েছেন বলে জানা গেছে। দলের এক কর্মিসভায় ওই প্রার্থীর জন্য ভোট চেয়ে তিনি বক্তব্য দেন।

এই সংসদ সদস্য হলেন আইন, বিচার ও সংসদবিষয়ক স্থায়ী কমিটির সদস্য তালুকদার মো. ইউনুস। তিনি বরিশাল-২ (বানারীপাড়া-উজিরপুর) আসনের সংসদ সদস্য এবং বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগেরও সাধারণ সম্পাদক।

জানতে চাইলে সংসদ সদস্য তালুকদার মো. ইউনুস কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমি কর্মিসভায় গিয়েছিলাম। কোনো জনসভা করিনি। প্রার্থীর পক্ষে ভোটও চাইনি। ’

গত শুক্রবার বিকেলে বরিশালের বানারীপাড়া উপজেলার চাখার ইউনিয়নের বড় ভৈৎসর গ্রামে আওয়ামী লীগের কর্মিসভা অনুষ্ঠিত হয় যুবলীগ নেতা আজাদের বাড়ির উঠানে। ওই কর্মিসভায় হাজারের বেশি ভোটার উপস্থিত ছিলেন। নেতাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ওই ইউনিয়ন পরিষদের দলীয় চেয়ারম্যান প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপিত মো. খিজির সরদার। সংসদ সদস্য তালুকদার মো. ইউনুস দলীয় চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীকে স্থানীয় ভোটারদের কাছে পরিচয় করিয়ে দেন। এমনকি প্রার্থীর পক্ষে তিনি নৌকা প্রতীকে ভোট প্রার্থনাও করেন।

‘সরকারের সুবিধাভোগী অতি গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি (সংসদ সদস্য) নির্বাচন-পূর্ব সময়ে নির্বাচনী এলাকায় প্রচারণায় বা নির্বাচনী কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করিতে পারিবেন না; তবে সংশ্লিষ্ট নির্বাচনী এলাকার ভোটার হইলে তিনি (সাংসদ) কেবল তাহার ভোট প্রদানের জন্য ভোটকেন্দ্রে যাইতে পারিবেন। ’ নির্বাচন কমিশনের জারি করা প্রজ্ঞাপনে এমন নির্দেশনা রয়েছে।

নির্বাচনী আচরণবিধির ব্যাখ্যা দিয়ে বানারীপাড়া উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা শরিফা বেগম কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘সংসদ সদস্য কোনো প্রার্থীর নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিতে পারেন না। যদি নেন তবে তা আচরণবিধির লঙ্ঘন হবে। স্থানীয় সংসদ সদস্য কোনো প্রচারণায় অংশ নিয়েছেন বলে কেউ অভিযোগ দেননি। অভিযোগ এলে তা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হবে। সে অনুযায়ী নির্বাচন কমিশন পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করবে। ’

নির্বাচন কর্মকর্তা আরো বলেন, ‘সংসদ সদস্যের বিরুদ্ধে প্রজাতন্ত্রের কর্মচারী হয়ে আগ বাড়িয়ে কোনো ব্যবস্থা নিতে পারি না। ’

উপজেলার চাখার ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের শুক্রবারের কর্মিসভা ইউনিয়নের প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা মো. আতাহার আলী হাওলাদারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। কর্মিসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে সংসদ সদস্য তালুকদার মো. ইউনুস বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতি অব্যাহত রাখতে প্রতিটি মানুষের উচিত মওলানা ভাসানী, শহীদ সোহরাওয়ার্দী, বঙ্গবন্ধু ও স্বাধীনতার প্রতীক নৌকায় ভোট দিয়ে বিজয়ী করা। তাই চাখারে আওয়ামী লীগের প্রার্থী খিজির সরদারকে ভোট দিয়ে প্রধানমন্ত্রীর হাতকে শক্তিশালী করার আহ্বান জানাই। ’

ওই ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের ‘বিদ্রোহী’ চেয়ারম্যান প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ মজিবুল হক ওরফে টুকু কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আচরণবিধি লঙ্ঘন করে চলছেন। বিষয়গুলো প্রশাসনকে অবহিত করা হলেও তারা কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছেন না। সংসদ সদস্যের বিরুদ্ধে আচরণবিধি লঙ্ঘনের ব্যাপারে কোনো কর্মী অভিযোগ তুলবেন না। তবে প্রশাসন বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করলে ভোটারদের মধ্যে স্বস্তি ফিরে আসত। এটা সরকারের করণীয়। ’

বিএনপি মনোনীত প্রার্থী শাহনাজ পারভীন দুলু বলেন, ‘আচরণবিধি লঙ্ঘন করে সংসদ সদস্য নির্বাচনী প্রচার কাজে অংশ নিলে সাধারণ ভোটাররা প্রভাবিত হবেন। এ ছাড়া প্রশাসনও আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থীর পক্ষ অবলম্বন করবে। ’


মন্তব্য