kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


মামলাজট কমাতে জেলা আদালতে কাজ চান অবসরপ্রাপ্ত বিচারকরা

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

৫ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



অবসর গ্রহণের পর বিচারকদের সময় কাটে কষ্টে। এ সময় বিচারকদের কোনো কাজে যোগ দেওয়ার সুযোগও থাকে না।

অন্যদিকে দেশে ৩০ লাখ মামলার জট লেগে আছে। তাই মামলাজট কমাতে, দেশের কল্যাণে কাজ করতে চান অবসরপ্রাপ্ত বিচারকরা। জেলা জজের পরামর্শ মোতাবেক তাঁরা বিচারকাজে অংশ নিতে চান।

গতকাল শুক্রবার সকালে অবসরপ্রাপ্ত বিচারকদের সংগঠন রিটায়ার্ড জাজেস ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের বার্ষিক সাধারণ সভায় এ দাবি জানানো হয়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কবি সুফিয়া কামাল হলসংলগ্ন বিচার প্রশাসন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এতে শতাধিক অবসরপ্রাপ্ত জেলা জজ উপস্থিত ছিলেন। ২০১১ সালে অবসরপ্রাপ্ত বিচারকদের এ সংগঠনটি যাত্রা করে।

সম্মেলনে অবরসপ্রাপ্ত বিচারকরা বলেন, মানুষের গড় আয়ু বেড়েছে; তবে বাড়েনি বিচারকদের অবসরসীমা। এতে অবসরের পর অনেককেই কষ্টের জীবন পার করতে হয়। তবে সুযোগ পেলে কোনো ধরনের সরকারি সুযোগ-সুবিধা ছাড়াও অবসরের পর জাতির স্বার্থে কাজ করবেন বিচারকরা। এতে আদালতে ঝুলে থাকা ৩০ লাখ মামলার জট কমবে। সংগঠনের সভাপতি ও সাবেক জেলা জজ শীলভদ্র বড়ুয়ার সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন আইন মন্ত্রণালয়ের সচিব আবু সাহেল শেখ মুহাম্মদ জহিরুল হক, সাবেক সচিব আসাদুজ্জামান ও আলাউদ্দিন সরদার, সাবেক জেলা জজ এম এম মুনসেফ আলী, জহিরুল হক ও সংগঠনটির ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মীর মোহাম্মদ আওলাদ হোসেনসহ অন্যরা। সাবেক জেলা জজ জহিরুল হক বলেন, ‘আমরা অবসরপ্রাপ্ত বিচারকরা অবসরের পর কোথাও যেতে পারি না। বাড়ির মধ্যে কষ্টে জীবন অতিবাহিত করতে হয়। অবসরের পর সরকার বিচারকদের কাজ দিলে বিনা বেতন ও কোনো ধরনের সুযোগ-সুবিধা ছাড়া জাতিকে সেবা দেবেন বিচারকরা। অবসরপ্রাপ্ত বিচারকদের স্পৃহা আছে। প্রয়োজনে আইন করে কাজের সুবিধা দিতে হবে। এতে জাতি উপকৃত হবে। ’ জেলা জজের পরামর্শে আদালতে বিচারাধীন মামলার কার্যক্রম পরিচালনার দায়িত্ব অবসরপ্রাপ্ত বিচারকদের দেওয়ার দাবি জানান তিনি।

সাবেক বিচারক আবুল মনসুর বলেন, বিচারকদের অবসরের পর কোনো কাজ থাকে না। এতে অবসরের পর বিচারকরা হতাশায় ভোগেন। সরকার কাজের সুবিধা করে দিলে কাজ করবেন বিচারকরা। ’ একই কথা বলেন সাবেক জেলা জজ সুদীপ্ত কুমার বিশ্বাস ও সচিব আসাদুজ্জামান। পরে আইন মন্ত্রণালয়ের সচিব আবু সালেহ তাঁর বক্তব্যে বলেন, ‘এখানে সচিব হিসেবে আসি নাই। সিনিয়রদের দোয়া নিতে এসেছি। ’ তিনি বলেন, জেলা জজরা রয়েছেন। তাই সেখানে অবসরপ্রাপ্ত বিচারকদের মামলা পরিচালনার দায়িত্ব দেওয়া যায় না। আইনি বাধ্যবাধকতা রয়েছে।


মন্তব্য