ফেসবুক প্রতারক ১২ বিদেশিসহ-332266 | খবর | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

সোমবার । ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১১ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৩ জিলহজ ১৪৩৭


ফেসবুক প্রতারক ১২ বিদেশিসহ গ্রেপ্তার ১৪

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৫ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে প্রতারণার ফাঁদ পেতেছে বিদেশিরাও। তারা আফ্রিকান হলেও ইউরোপের নাগরিক পরিচয়ে বন্ধুত্ব গড়ে তুলে আর্থিকভাবে সচ্ছল নারী বা পুরুষের কাছ থেকে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। র‌্যাবের ধারাবাহিক অভিযানে এমন একটি প্রতারকচক্র ধরা পড়েছে, যেখানে আছে ১২ বিদেশিসহ ১৪ জন। র‌্যাব কর্মকর্তারা বলছেন, গ্রেপ্তারকৃতরা আন্তর্জাতিক অনলাইন প্রতারকচক্রের সদস্য। আফ্রিকার তিন দেশের ১৪ জন অবৈধভাবে এ দেশে থেকে অনলাইনে প্রতারণা করছিল। তারা ফেসবুক, হোয়াইটসঅ্যাপ, ভাইবার, ট্যাংগোসহ অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বন্ধুত্ব বা প্রেমের ফাঁদ পাতে। এ চক্রের ফাঁদে পড়েছেন খুলনার এক চাকরিজীবী নারী, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের এক নারী চিকিৎসক এবং রাঙামাটির এক প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকাসহ কয়েকজন।

বৃহস্পতিবার রাতে উত্তরা, খিলক্ষেত, ভাটারাসহ কয়েকটি এলাকায় অভিযান চালিয়ে ১৪ অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করা হয়। তারা হলো নাইজেরিয়ান নাগরিক আইব্যা (৩০), কেসি (৩০), অ্যাডউইন (৩৫), ইমনোয়ার (৩৩), কসমডস আলকুজমুজিন ওকিউলিজি (৫১), জোসোয়া (২৭), ইব্রাহিম (২৭), জাসোনামা (৪১) ও বিসেন্স (২৯), ক্যামেরুনের নাগরিক ওসমান (২৯), সানজো (৩৬), আনট প্রিজো (৪২) এবং কঙ্গোর একজন (২৯)। তাদের সহযোগী বাংলাদেশের নাগরিক মামুন মোকাররম (৩৮) ও সুলতান মাহমুদকে (২৬) উত্তরা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাদের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ মোবাইল, ল্যাপটপ, ট্যাব, ওয়াইফাই (রাউটার), পাওয়ার ব্যাংক, পাসপোর্ট এবং ডলারসহ বাংলাদেশি টাকা উদ্ধার করা হয়।

র‌্যাব কর্মকর্তারা আরো জানান, গত ১৭ ফেব্রুয়ারি একই ধরনের আরেকটি প্রতারকচক্রকে গ্রেপ্তার করেছেন তারা। এরই ধারাবাহিকতায় আফ্রিকার তিন দেশের ১২ নাগরিক ধরা পড়েছে।

গতকাল বিকেলে র‌্যাব-১ কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে অধিনায়ক লে. কর্নেল তুহিন মোহাম্মদ মাসুদ জানান, আন্তর্জাতিক সাইবার প্রতারকচক্রটি ফেসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহার করে অভিনব কায়দায় অর্থ হাতিয়ে নিত। বিদেশিদের বেশির ভাগই অবৈধভাবে বাংলাদেশে অবস্থান করছে। নাইজেরিয়ান কেসি ও আইব্যা দীর্ঘদিন বাংলাদেশে থাকায় বাংলায় অনর্গল কথা বলতে পারে। তারা উত্তরার সেক্টর-১৪, রোড-১৫-এর ৯ নম্বর বাড়িতে থাকে। তুহিন মোহাম্মদ মাসুদ আরো জানান, অপরাধীরা খুলনায় বসবাসরত একজন নারী চাকরিজীবী, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের এক নারী চিকিৎসক, রাঙামাটির প্রাইমারি স্কুল শিক্ষিকাসহ অনেক ভিকটিমের সঙ্গে ফেসবুকের মাধ্যমে সক্ষ্য গড়ে তোলে।

মন্তব্য