ভারত থেকে ১০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আসছে-331592 | খবর | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

রবিবার । ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১০ আশ্বিন ১৪২৩ । ২২ জিলহজ ১৪৩৭


ভারত থেকে ১০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আসছে ২৩ মার্চ

বিশ্বজিৎ পাল বাবু, ব্রাহ্মণবাড়িয়া   

৩ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের পালাটানা বিদ্যুৎকন্দ্র থেকে আগামী ২৩ মার্চ বাংলাদেশ ১০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ পেতে যাচ্ছে বলে আশা করা হচ্ছে। ওই দিন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি টেলিকনফারেন্সের মাধ্যমে দুই দেশের মধ্যে বিদ্যুৎ সরবরাহের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন। বাংলাদেশ ও ভারতের বিদ্যুৎ বিভাগ সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

বিদ্যুৎ সরবরাহ করতে গত বছরের ডিসেম্বরে দুই দেশের মধ্যে পরিবাহী লাইন টানা হয়। গত ৯ জানুয়ারি বাংলাদেশের বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী ও ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের বিদ্যুত্মন্ত্রীর মধ্যে অনুষ্ঠিত বৈঠকে বিদ্যুতের দাম ঠিক হয়। সেই অনুসারে ভারতীয় পাঁচ রুপি অর্থাৎ প্রায় সাড়ে ছয় টাকায় এক ইউনিট বিদ্যুৎ পাবে বাংলাদেশ।

এ বিষয়ে জানতে ত্রিপুরার পরিবহন ও বিদ্যুত্মন্ত্রীর আগরতলার কার্যালয়ে গতকাল বুধবার বিকেলে ফোন করা হলে তিনি রাজ্যের বাইরে অবস্থান করছেন বলে জানানো হয়। মন্ত্রীর একান্ত সচিব অসীম দে কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী ২৩ মার্চ টেলিকনফারেন্সের মাধ্যমে বিদ্যুৎ সরবরাহের উদ্বোধন করবেন বলে কেন্দ্রীয় সরকার চিঠি পাঠিয়েছে।’

ওই সময় একই বিষয়ে জানতে বাংলাদেশের বিদ্যুৎ বিভাগের সচিব মনোয়ার ইসলামের কার্যালয়ে ফোন করা হলে তিনি মিটিংয়ে আছেন বলে জানানো হয়। সচিবের ব্যক্তিগত কর্মকর্তা ওয়াসিম উদ্দিন এ প্রতিবেদককে জানান, এখন পর্যন্ত ২৩ মার্চ উদ্বোধনের বিষয়টিই ঠিক আছে।   

এদিকে বাংলাদেশের ওপর দিয়ে বিদ্যুত্লাইন নিতে চায় ভারত। এর মাধ্যমে দুই দেশই লাভবান হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন ত্রিপুরা রাজ্যের বিদ্যুত্মন্ত্রী মানিক দে। সম্প্রতি টেলিফোনে কথা হলে কালের কণ্ঠ’র কাছে তিনি এ আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, ‘পরিবাহী লাইন বাংলাদেশে বিদ্যুৎ সরবরাহেও কাজে লাগবে। এর মাধ্যমে ভারতের পাওয়ার ট্রান্সমিশন নেটওয়ার্ক শক্তিশালী হওয়ার পাশাপাশি বাংলাদেশও তা ব্যবহার করতে পারবে। ফলে এতে দুই দেশই উপকৃত হবে।’

মন্ত্রী জানান, আসাম রাজ্যের রাজধানী গুয়াহাটিতে অনুষ্ঠিত নর্থ-ইস্ট রিজিওনাল পাওয়ার কমিটির ১৬তম বৈঠকে এ বিষয়ে একটি প্রস্তাব কেন্দ্রের কাছে পাঠানোর সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

মন্তব্য