kalerkantho


দ্বিতীয় ধাপের মনোনয়ন জমার শেষ দিন আজ

বিশেষ প্রতিনিধি   

২ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে দেশের ৬৪ জেলার জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের সহকারী রিটার্নিং অফিসার নিয়োগ করা হয়েছে। প্রথম ধাপের মনোনয়নপত্র জমা দিতে কিছু এলাকায় প্রার্থীরা বাধা পাওয়ার অভিযোগের পর নির্বাচন কমিশন (ইসি) গতকাল এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে। জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে এসব সহকারী রিটার্নিং অফিসারের কাছ থেকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ ও তা দাখিল করা যাবে এবং সহকারী রিটার্নিং অফিসাররা জমা নেওয়া মনোনয়নপত্র রিটার্নিং অফিসারদের কাছে পৌঁছে দেবেন।

তফসিল অনুযায়ী, আজ বুধবার প্রথম ধাপে নির্বাচন হতে যাওয়া ইউনিয়ন পরিষদগুলোতে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন। একই সঙ্গে দ্বিতীয় ধাপের ইউপিগুলোর ক্ষেত্রে প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিনও আজ।

এদিকে ইসির এই সিদ্ধান্ত গ্রহণের আগে গত সোমবার নির্বাচন কমিশনার মো. শাহ নেওয়াজ সাংবাদিকদের বলেন, ‘প্রথম ধাপে কয়েকটি এলাকায় মনোনয়নপত্র জমাদানে বাধা দেওয়ার অভিযোগ আসায় কমিশন পরের ধাপে একাধিক স্থানে মনোনয়নপত্র জমাদানের সুযোগ সৃষ্টির চিন্তা-ভাবনা করছে। ’

তবে নির্বাচন কমিশনার আবদুল মোবারক এ বিষয়ে দ্বিমত প্রকাশ করে সোমবার রাতেই এ প্রতিবেদককে বলেন, ‘কমিশন বৈঠকে বিষয়টি নিয়ে এখনো আলোচনা হয়নি। একই সঙ্গে তিনি প্রশ্ন রাখেন, কেন এ ধরনের সিদ্ধান্ত নিতে হবে? প্রার্থীকে যদি কেউ মনোনয়নপত্র জমা দিতে বাধা দেয় তাহলে তা হবে ফৌজদারি অপরাধ। বিষয়টি নিয়ে মামলা হওয়ার কথা। কিন্তু এ ধরনের অভিযোগে কোনো মামলা হয়েছে বলে আমাদের জানা নেই। ’

তবে ইসি সচিবালয় সূত্র জানায়, সোমবার বিকেলেই নির্বাচন কমিশনার আবদুল মোবারকের অনুপস্থিতিতে অন্য নির্বাচন কমিশনাররা এ বিষয়ে কমিশন বৈঠকে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন। বৈঠকে নির্বাচন কমিশনাররা একাধিক স্থানে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার বিষয়ে একাধিক প্রস্তাব রাখলে শেষ পর্যন্ত নির্বাচন কমিশনার আবু হাফিজের প্রস্তাবনা গ্রহণ করে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের সহকারী রিটার্নিং অফিসার নিয়োগ করা এবং তাঁদের মাধ্যমে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়েই মনোনয়নপত্র জমা নেওয়ার সুযোগ রাখার সিদ্ধান্ত হয়।

এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশনার আবু হাফিজ গতকাল বিকেলে এ প্রতিবেদককে বলেন, কমিশন বৈঠকের সময় নির্বাচন কমিশনার আবদুল মোবারক ছিলেন না। আজ (মঙ্গলবার) তাঁকে কমিশনের সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়েছে। তখন তিনি দ্বিমত প্রকাশ করেননি।

এদিকে নির্বাচন কমিশনের ওই সিদ্ধান্ত অনুসারে গতকালই ইসি সচিবালয়ের উপসচিব মো. সামসুল আলম স্বাক্ষরিত এ-সংক্রান্ত একটি নির্দেশনা সংশ্লিষ্ট সব মন্ত্রণালয়, বিভাগ ও নির্বাচন কর্মকর্তাদের কাছে পাঠানো হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, ‘ইউনিয়ন পরিষদ সাধারণ নির্বাচন-২০১৬-এ জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের প্রশাসনিক কর্মকর্তাকে স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) নির্বাচন বিধিমালা-২০১০-এর ৫ বিধির (২) উপবিধি অনুসারে সহকারী রিটার্নিং অফিসার নিয়োগ করে পাশাপাশি জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে মনোনয়নপত্র গ্রহণ ও বিতরণ করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নির্বাচন কমিশন নির্দেশনা প্রদান করেছেন। সহকারী রিটার্নিং অফিসার জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের মনোনয়নপত্র জমা নিয়ে যথাযথ নিরাপত্তা সহকারে ওই দিনই রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে গিয়ে তাঁর (রিটার্নিং অফিসারের) কাছে বুঝিয়ে দিয়ে আসবেন। ’

দ্বিতীয় ধাপের নির্বাচনে আরো ১৫ ইউনিয়ন পরিষদ বাদ : দ্বিতীয় পর্যায়ের নির্বাচনের জন্য কমিশন ঘোষিত ৬৮৪টি ইউপির মধ্যে গতকাল আরো ১৫টিকে বাদ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এগুলো হলো পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলার ময়দানদিঘী, কাজলদিঘী কালিয়াগঞ্জ, মারোয়া বামনহাট ও বড়শশী, কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারীর ভূরুঙ্গামারী, পাথরডুবি ও শিলাখুড়ি, লালমনিরহাটের পাটগ্রামের  শ্রীরামপুর, বুড়িমারী, পাটগ্রাম, কুচলিবাড়ী, জগতবেড়, জোংড়া ও বাউরা এবং হাতীবান্ধার  গোতামারী।


মন্তব্য