kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


দেবীগঞ্জে পুরোহিত হত্যায় এক আসামির স্বীকারোক্তি

পঞ্চগড় প্রতিনিধি   

২ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জে পুরোহিত যজ্ঞেশ্বর রায়কে হত্যার ঘটনায় জেএমবি সদস্য আলমগীর হোসেন (২৮) স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। গতকাল পঞ্চগড়ের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম মার্জিয়া খাতুনের আদালতে ১৬৪ ধারায় তার জবানবন্দি রেকর্ড করা হয়েছে।

এদিকে আহত গোপাল চন্দ্র রায়ের গুলিবিদ্ধ হাতটি কেটে ফেলার জন্য চিকিৎসকরা পরামর্শ দিয়েছেন বলে জানা গেছে।

২১ ফেব্রুয়ারি দেবীগঞ্জ উপজেলা সদরে অবস্থিত সন্ত গৌড়ীয় মঠে গিয়ে দুর্বৃত্তরা পুরোহিত যজ্ঞেশ্বর রায়কে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে ও গলা কেটে হত্যা করে। এ সময় গুলিতে আহত হন ভক্ত গোপাল চন্দ্র ও সাধু নির্মল চন্দ্র রায়। এ ঘটনায় দায়ের করা মামলার সূত্রে পুলিশ বৃহস্পতিবার নীলফামারীর সৈয়দপুর বাসটার্মিনাল থেকে গ্রেপ্তার করে জেএমবি সদস্য আলমগীর হোসেনকে। ঘটনার দিন তার ভাই জাহাঙ্গীর হোসেনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। দুই ভাইসহ মোট ছয় আসামিকে পুলিশ রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছে। স্বীকারোক্তি দিতে রাজি হওয়ায় গতকাল দুপুরে আলমগীরকে আদালতে হাজির করা হয়। বিকেল ৪টা থেকে বিচারক তাঁর খাস কামরায় জবানবন্দি নেওয়া শুরু করেন। প্রায় দুই ঘণ্টা ধরে দেওয়া জবানবন্দিতে আলমগীর নিজের সংশ্লিষ্টতাসহ হত্যার নানা দিক বর্ণনা করেছে। জবানবন্দি শেষে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে গতকাল বিকেলে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম ও পঞ্চগড়-২ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম সুজন ঢাকার জাতীয় হূদরোগ ইনস্টিটিউটে চিকিৎসাধীন গোপাল চন্দ্র রায়কে দেখতে যান। তাঁরা চিকিৎসায় সব সহযোগিতার আশ্বাস দেন। ছোট ভাই সুমন চন্দ্র রায় জানান, গুলিবিদ্ধ হাতটি চিকিৎসকরা কেটে ফেলার পরামর্শ দিয়েছেন।


মন্তব্য