রাজশাহীর কোনো বাগানেই আগাম আম বিক্রি-330682 | খবর | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

বুধবার । ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১৩ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৫ জিলহজ ১৪৩৭


শঙ্কায় আমচাষি ও ব্যবসায়ীরা

রাজশাহীর কোনো বাগানেই আগাম আম বিক্রি হয়নি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



এ বছর রাজশাহীর কোনো বাগানের আম এখনো অগ্রিম বিক্রি হয়নি বলে দাবি করেছেন ওই অঞ্চলের আম বিক্রেতারা। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলমের উপস্থিতিতে গতকাল সোমবার তাঁরা সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে এ তথ্য জানান। তাঁরা বলেন, ফরমালিনসহ অন্যান্য রাসায়নিক পদার্থ মেশানোর অভিযোগ সঠিক নয়। নেতিবাচক প্রচারণার ফলেই এ বছর এখন পর্যন্ত আম বিক্রি হয়নি। এতে আম চাষ ও ব্যবসায় জড়িত হাজার হাজার মানুষ অর্থনৈতিকভাবে কঠিন পরিস্থিতিতে পড়তে যাচ্ছে।

জানা গেছে, বাংলাদেশে আমের প্রধান উত্পাদনকারী অঞ্চল উত্তরবঙ্গের জনপ্রতিনিধি হিসেবে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম কৃষিবিষয়ক গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন। এতে রাজশাহীর দুজন আম উত্পাদনকারী ও ব্যবসায়ী উপস্থিত ছিলেন।

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, আগের তুলনায় বর্তমানে রাজশাহীর আমে কীটনাশক ও ফল পাকানোর উপকরণ ব্যবহারে চাষি ও ব্যবসায়ীরা অনেক সচেতন। এর ফলে গত বছর আমে রাসায়নিক পদার্থ মেশানোর মাত্রা যথেষ্ট কম ছিল এবং এ বছর অবস্থার আরো উন্নতি হয়েছে। তিনি এ বিষয়ে আরো বেশি হারে অনুসন্ধানী ও গভীর পর্যবেক্ষণমূলক প্রতিবেদনের মাধ্যমে আমচাষি, ব্যবসায়ী, প্রশাসন ও ভোক্তাদের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টিতে গণমাধ্যমকর্মীদের অনুরোধ জানান।

বাঘার আমচাষি ও ব্যবসায়ী মো. জিল্লুর রহমান জানান, শুধু আমচাষি বা ব্যবসায়ীরাই নয়, এখন গ্রামগঞ্জের সাধারণ মানুষও রাসায়নিক পদার্থ মেশানোর বিরুদ্ধে সজাগ ও সোচ্চার।

রাজশাহীর চারঘাট থানার আমচাষি ও ব্যবসায়ী মো. শওকত আলী বুলবুল বলেন, আমে ফরমালিনসহ অন্যান্য রাসায়নিক মেশানোর যে প্রচারণা আছে, তা সম্পূর্ণ সঠিক নয় এবং এ ধরনের প্রচারণার ফলে এই বছর রাজশাহীর কোনো আমবাগানেই অগ্রিম আম বিক্রয় হয়নি।

সভায় উপস্থিত গণমাধ্যমকর্মীরা আম দ্রুত পাকাতে রাইপেন এজেন্ট ইথিকোন ইথাইল ব্যবহার মানবদেহের জন্য সহনীয় পর্যায়ে রাখা এবং কৃষক, ব্যবসায়ীসহ সবাইকে বাজারজাতকরণের সব পর্যায়ে ফরমালিন ব্যবহার থেকে বিরত থাকার পরামর্শ দেন।

মন্তব্য