সহপাঠীদের ভয় কাটেনি, সাহেদ আরো তিন-330660 | খবর | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

শনিবার । ১ অক্টোবর ২০১৬। ১৬ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৮ জিলহজ ১৪৩৭


বাহুবলে চার শিশু হত্যা

সহপাঠীদের ভয় কাটেনি, সাহেদ আরো তিন দিনের রিমান্ডে

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি   

১ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



হবিগঞ্জের বাহুবল উপজেলার সুন্দ্রাটিকি গ্রামে চার শিশুর মাটিচাপা দেওয়া লাশ উদ্ধারের পর ১২ দিন অতিবাহিত হলেও গ্রামের পরিস্থিতি পুরোপুরি স্বাভাবিক হয়নি। স্থানীয় প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিশু শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি কিছুটা বাড়লেও ৪০ শতাংশ পেরোয়নি।

এদিকে গতকাল সোমবার প্রধান সন্দেহভাজন আবদুল আলী বাগালের ভাতিজা সাহেদ মিয়াকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আরো তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। এর আগে তাঁকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

গতকাল তদন্তকারী কর্মকর্তা হবিগঞ্জ পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) ওসি মুক্তাদির হোসেন সাহেদ মিয়াকে জ্যেষ্ঠ বিচার বিভাগীয় হাকিম আদালতে হাজির করে আবার সাত দিনের রিমান্ড চান। শুনানির পর হাকিম মো. কাওসার আলম তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। 

তদন্তকারী কর্মকর্তা জানান, গত ২৫ ফেব্রুয়ারি সাহেদ মিয়াকে এক দফা রিমান্ডে নেওয়া হয়। তিনি জিজ্ঞাসাবাদে যেসব তথ্য দিয়েছেন, সেগুলোতে অসঙ্গতি আছে। তাই তাঁকে আরো জিজ্ঞাসাবাদ দরকার। গতকাল সকালে সুন্দ্রাটিকি গ্রামে গিয়ে দেখা যায়, স্থানীয় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা যথারীতি বিদ্যালয়ে উপস্থিত আছেন। কিন্তু ছাত্রছাত্রীর উপস্থিতি তেমন একটা নেই। ৩৪০ জন ছাত্রছাত্রীর মধ্যে উপস্থিত আছে ১৫০ জনের মতো।

কথা হয় বিদ্যালয়ের ছাত্র তোফায়েল, লুবনা, তুষার ও জেরিনের সঙ্গে। তারা জানায়, সহপাঠীদের অপহরণ ও হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় তারা ভয় পেয়েছে। এখনো সে ভয় কাটেনি।

শিক্ষক শাহজাহান তালুকদার বলেন, ঘটনার ১২ দিন অতিবাহিত হলেও এখন পর্যন্ত গ্রামবাসীর মধ্যে স্বভাবিক অবস্থা ফিরে আসেনি। এ কারণে শিশুরা যেমন ঘর থেকে বের হতে চায় না, অনেক অভিভাবকও তাঁদের সন্তানদের স্কুলে পাঠাতে আগ্রহ দেখাচ্ছেন না।

মন্তব্য