kalerkantho


বিজ্ঞানমনস্ক তারুণ্যের প্রেরণা জ্যোতির্বিদ এ আর খান

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি    

১৩ জুন, ২০১৫ ০০:০০



ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের সাবেক শিক্ষক অধ্যাপক আনোয়ারুর রহমান খানের (এ আর খান) স্মরণ সভায় বক্তারা বলেছেন, এ আর খান বিজ্ঞানের বিস্তারে আমৃত্যু কাজ করেছেন। তিনি অনুমান করতে পেরেছিলেন বিজ্ঞানের উন্নতি ছাড়া একটি দেশ উন্নতি করতে পারে না। আর এই বিজ্ঞানকে তরুণসমাজের মধ্যে ছড়িয়ে দিতে কঠোর পরিশ্রম করেছেন তিনি। এ আর খান বিজ্ঞানমনস্ক তরুণসমাজের জন্য প্রেরণা ও অনুকরণীয়।
গতকাল শুক্রবার বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের খন্দকার মোকাররম হোসেন বিজ্ঞান ভবনের সভাকক্ষে স্মরণসভায় বক্তারা এসব কথা বলেন। এ আর খান স্মরণসভা পরিষদ, অনুসন্ধিৎসু চক্র, বাংলাদেশ ঘুড়ি ফেডারেশন, বিজ্ঞান সংস্কৃতি পরিষদ ও ফলিত পদার্থবিজ্ঞান বিভাগ এ সভার আয়োজন করে। এ আর খানের সহকর্মী ও শিক্ষার্থীরা দীর্ঘদিন একত্রে কাটানো জীবনের নানা দিক নিয়ে আলোচনা করেছেন। উল্লেখ্য, অধ্যাপক এ আর খান গত ২৫ মে লন্ডনে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।
এ আর খানের দীর্ঘদিনের সহকর্মী অধ্যাপক অজয় রায় বলেন, ‘তিনি কেবল জ্যোতির্বিদই ছিলেন না। এর বাইরেও তাঁর একাধিক পরিচয় ছিল। তাঁর চরিত্রের বড় গুণ ছিল বন্ধুবৎসল। বিজ্ঞানকে সবার মাঝে ছড়িয়ে দিতে একাধিক সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত হয়েছিলেন তিনি। কোনো কাজেই তিনি অবহেলা করেননি। অতি বড় মাপের মানুষ হওয়া সত্ত্বেও নিয়মিত বাইসাইকেল চালিয়ে কার্জন হলে আসতেন। বিজ্ঞানের জন্য তাঁর অবদান তরুণসমাজের জন্য অনুকরণীয়।’ অধ্যাপক ড. আলী আসগর বলেন, ‘দর্শন নিয়ে কাজ করতেন না, কিন্তু দার্শনিক ছিলেন তিনি। ব্যক্তিগত কোনো চিন্তা থেকে নয়, সকলের চিন্তায় কাজ করেছেন। তবে ভালো কাজ করলেও জীবদ্দশায় তাঁকে সামাজিক মর্যাদা দিতে পারিনি আমরা।’


মন্তব্য