kalerkantho

পবিত্র কোরআনের আলো | ধারাবাহিক

বিশেষ মর্যাদায় অভিষিক্ত ইদরিস (আ.)

২৭ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বিশেষ মর্যাদায় অভিষিক্ত ইদরিস (আ.)

৫৭. আর আমি তাকে [ইদরিস (আ.)-কে] উন্নীত করেছি উচ্চ মর্যাদায়। (সুরা : মারিয়াম, আয়াত : ৫৭)

তাফসির : আগের আয়াতে বলা হয়েছিল, ইদরিস (আ.) ছিলেন সত্যনিষ্ঠ মানুষ এবং একজন নবী। আলোচ্য আয়াতে তাঁর আরো বৈশিষ্ট্য তুলে ধরা হয়েছে। এখানে বলা হয়েছে, মহান আল্লাহ ইদরিস (আ.)-কে উচ্চ মর্যাদায় উন্নীত করেছেন। এ ব্যাখ্যায় বর্ণিত হয়েছে যে ইদরিস (আ.) পৃথিবীর প্রথম মানব, যাঁকে মোজেজা (অলৌকিক নিদর্শন) হিসেবে জ্যোতির্বিজ্ঞান ও অঙ্কবিদ্যা দান করা হয়েছিল। তিনিই সর্বপ্রথম মানব, যিনি আল্লাহর নির্দেশে কলমের সাহায্যে লিখনপদ্ধতি ও বস্ত্র সেলাইশিল্পের সূচনা করেন। তাঁর আগে মানুষ সাধারণত পোশাক হিসেবে জীবজন্তুর চামড়া ব্যবহার করত। ওজন ও পরিমাপের পদ্ধতি তিনিই সর্বপ্রথম আবিষ্কার করেন এবং লোহা দ্বারা অস্ত্র তৈরির পদ্ধতি তিনিই প্রথম আবিষ্কার করেন। (তাফসিরে কুরতুবি)

প্রাচীন আমলে মানুষের প্রয়োজনে অঙ্কশাস্ত্রের সূচনা হয়। ধারণা করা হয়, সৃষ্টির সূচনা থেকেই অঙ্কশাস্ত্রের আবিষ্কার। আল্লাহর একত্ববাদের সাক্ষ্য দেওয়ার মাধ্যমেও গণনাসংখ্যার অস্তিত্ব প্রকাশ পায়। কিয়ামতের দিন জিজ্ঞাসা করা হবে—‘তোমরা পৃথিবীতে কত বছর অবস্থান করেছিলে? তারা বলবে, আমরা অবস্থান করেছিলাম এক দিন বা এক দিনের কিছু অংশ। আপনি না হয় গণনাকারীদের জিজ্ঞেস করুন। তিনি বলবেন, তোমরা অল্পকালই অবস্থান করেছিলে, যদি তোমরা জানতে!’ (সুরা : মুমিন, আয়াত : ১১২-১১৪)

মানবসভ্যতার বিকাশ ঘটেছে লিখনপদ্ধতির মাধ্যমে। সভ্যতা আর সংস্কৃতির সন্ধান মিলেছে এর মাধ্যমে। পৃথিবীর গত হওয়া ইতিহাস, হারিয়ে যাওয়া দিনের খোঁজ জানা গেছে এই লিখনপদ্ধতির মাধ্যমে।  ইদরিস (আ.) প্রথম মানব, যিনি কলমের সাহায্যে লিখনপদ্ধতির কাজ শুরু করেন। এর আগে কলমের ব্যবহার হয়নি। (তাফসিরে মা’আরেফুল কোরআন, পৃষ্ঠা : ৮৩৮)

সূচনায় লতাপাতা ছিল মানুষের পোশাক। গাছের পাতা, গাছের কাণ্ডের বাকল দিয়ে মানুষ তাদের ইজ্জত-আব্রুর হেফাজত করত। অনেকে জীবজন্তুর চামড়া দিয়ে তৈরি সেলাইবিহীন পোশাক পরিধান করত। আজকের পৃথিবীর মানুষের মতো তখনকার মানুষের কোনো পোশাক ছিল না। কেউ সেলাই করে কাপড় পরিধান করত না। সেলাইবিহীন ছিল তাদের পোশাক। পৃথিবীর শহরে ইদরিস (আ.) প্রথম সেলাই করা কাপড় পরিধান করেন। তিনি নিজেই নিজের কাপড় সেলাই করতেন। তিনি ছিলেন জগতের প্রথম দর্জি। তিনি মানুষের কাপড়ও সেলাই করতেন। ধারণা করা হয়, তিনি কোনো মজুরি নেননি। (তাফসিরে মা’আরেফুল কোরআন : ৮৩৮) 

লোহা দ্বারা অস্ত্রশস্ত্র তৈরির পদ্ধতি তিনিই সর্বপ্রথম আবিষ্কার করেন। বিভিন্ন কাজের জন্য লোহার ব্যবহার তাঁর আমল থেকেই শুরু হয়। মানুষের প্রয়োজনীয় নানা কাজের সহজলভ্যতার জন্য ব্যবহার করা হতো লোহা দিয়ে তৈরি অস্ত্র। তাঁর তৈরি করা অস্ত্রের সাহায্যে কাবিল গোত্রের বিরুদ্ধে যুদ্ধ পরিচালনা করেন।

মানুষের সামাজিক জীবনে অতি গুরুত্বপূর্ণ ওজন ও পরিমাপ। মানুষের পরস্পরের মধ্যে লেনদেন, বস্তু আদান-প্রদান, পণ্য বেচা-কেনার জন্য ওজন জরুরি। ওজন ও পরিমাপ ছাড়া মানুষের সভ্যতা, সমাজ ও সংস্কৃতি সুন্দরভাবে চলতে পারে না। সঠিক পরিমাণে আদান-প্রদান করতে পারে না তাদের মালপত্র। ইদরিস (আ.) আবিষ্কার করেন ওজন ও পরিমাপ পদ্ধতি।

গ্রন্থনা : মুফতি কাসেম শরীফ

মন্তব্য