kalerkantho

ব্যক্তিত্ব

৬ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



ব্যক্তিত্ব

নারায়ণ গঙ্গোপাধ্যায়

কথাসাহিত্যিক নারায়ণ গঙ্গোপাধ্যায়ের জন্ম দিনাজপুর জেলার বালিয়াডিঙ্গিতে ১৯১৮ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি। তাঁর প্রকৃত নাম তারকনাথ গঙ্গোপাধ্যায়। ‘নারায়ণ’ তাঁর সাহিত্যিক ছদ্মনাম। তাঁর পৈতৃক নিবাস ছিল বরিশাল জেলার বাসুদেবপুরে। তাঁর বাবা প্রমথনাথ গঙ্গোপাধ্যায় ছিলেন দারোগা। ১৯৩৩ সালে দিনাজপুর জিলা স্কুল থেকে প্রবেশিকা পাস করে ফরিদপুর রাজেন্দ্র কলেজে ভর্তি হলেও রাজনৈতিক কারণে ১৯৩৫ সালে তাঁকে  ফরিদপুর ত্যাগ করতে হয়। পরে তিনি বরিশালের বিএম কলেজে ভর্তি হন এবং নন-কলেজিয়েট ছাত্র হিসেবে ১৯৩৬ সালে আইএ এবং ১৯৩৮ সালে ডিস্টিংকশনসহ বিএ পাস করেন। ১৯৪১ সালে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমএ পরীক্ষায় অসাধারণ ফলাফল করায় তিনি ব্রহ্মময়ী স্বর্ণপদক লাভ করেন। ১৯৬০ সালে তিনি ডিফিল ডিগ্রি অর্জন করেন। আনন্দচন্দ্র কলেজে অধ্যাপনার মাধ্যমে তাঁর কর্মজীবন শুরু হয়। পরে জলপাইগুড়িতে কিছুদিন এবং কলকাতার সিটি কলেজে ১৯৪৫ থেকে ১৯৫৫ সাল পর্যন্ত অধ্যাপনা করার পর ১৯৫৬ সাল থেকে তিনি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপনা করেন। তাঁর সাহিত্যচর্চা শুরু হয় ছাত্রজীবনে কাব্য রচনার মধ্য দিয়ে। কালক্রমে তিনি গল্প, উপন্যাস, নাটক প্রভৃতি রচনা করে বিশেষ খ্যাতি অর্জন করেন। সাহিত্যে ছোটগল্প, কথাকোবিদ রবীন্দ্রনাথ, সুনন্দর জার্নাল ও টেনিদা সিরিজ তাঁর বিখ্যাত গ্রন্থ। তিনি শনিবারের চিঠির নিয়মিত লেখক ছিলেন। জীবনের শেষ সময়ে তিনি সাপ্তাহিক দেশ পত্রিকায় ‘সুনন্দ’ ছদ্মনামে লিখতেন। ইতিহাসবোধ ও স্বাদেশিকতা তাঁর রচনার উপজীব্য। বাংলার নিসর্গ ও নদ-নদীর তরঙ্গমালা, বাঙালির আদিম ও আরণ্যক জীবন তাঁর উপন্যাসে চিত্রিত হয়েছে। আনন্দ পুরস্কারসহ নানা পুরস্কারে তিনি ভূষিত হয়েছেন। ১৯৭০ সালের ৬ নভেম্বর তিনি কলকাতায় মৃত্যুবরণ করেন। 

[বাংলাপিডিয়া অবলম্বনে]



মন্তব্য