kalerkantho

ব্যক্তিত্ব

৬ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



ব্যক্তিত্ব

গাব্রিয়েল গার্সিয়া মার্কেস

সাহিত্যিক ও সাংবাদিক গাব্রিয়েল গার্সিয়া মার্কেসের জন্ম ১৯২৭ সালের ৬ মার্চ কলম্বিয়ার ক্যারিবীয় উপকূলের কাছে আরাকাটাকা শহরে। তিনি গাবো নামেও পরিচিত ছিলেন। ১৯৪০ সালে তিনি উচ্চ বিদ্যালয়ে পড়তে বন্দরনগর বারানকুইল্লায় যান। ১৯৪৭ সালে ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে আইন বিষয়ে পড়াশোনা করেন। এ সময় তাঁর দুটি ছোটগল্প পত্রিকায় প্রকাশিত হয়। মার্কেসের জীবনে সাফল্য ও খ্যাতির পেছনে সবচেয়ে বেশি অবদান স্ত্রী মের্সেদেস বার্চার। মার্কেসের বয়স যখন মাত্র ১৪, তখনই তাঁদের প্রথম দেখা হয়। সেই দেখায়ই প্রেমে পড়ে যান; আর সেদিনই তিনি ভবিষ্যদ্বাণী করেন, ‘এই বালিকাই একদিন আমার স্ত্রী হবে।’ ১৯৪৫ সালে তাঁকে নিয়ে কবিতাও লিখেছিলেন। ভবিষ্যদ্বাণী সত্যি হয় ১৯৫৮ সালে। ১৯৫০ সালে আইন পড়া বন্ধ করে তিনি পেশাজীবন শুরু করেন সাংবাদিকতার মাধ্যমে। তিনি বারানকিইয়া শহরের এল এরালদো পত্রিকায় প্রতিবেদক এবং কার্তাহেনা শহরের এল উনিবের্সাল পত্রিকায় সম্পাদকের কাজ করেন। পরে তিনি কলম্বিয়ার রাজধানী বোগোতায় আসেন এবং এল এস্পেক্তাদোর পত্রিকায় কাজ করেন। তিনি রোম, প্যারিস, বার্সেলোনা, ক্যানসাস ও নিউ ইয়র্কে বিদেশি সংবাদদাতা হিসেবেও কাজ করেন। মার্কেসের অনেক রচনা কল্পনা ও বাস্তবতার সমন্বয়ে রচিত। ‘নিঃসঙ্গতার ১০০ বছর’ বইয়ের লেখক হিসেবে তিনি বিশেষভাবে পরিচিত। এটি তাঁর সবচেয়ে ব্যবসাসফল উপন্যাস, যা সারা বিশ্বে ২৫টি ভাষায় অনূদিত হয়ে ১৯৬৭-২০১৪ সময়ে প্রায় পাঁচ কোটি কপি বিক্রি হয়। ১৯৮২ সালে তিনি সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার লাভ করেন। জীবনের বেশির ভাগ সময় তিনি বসবাস করেছেন মেক্সিকো ও ইউরোপের বিভিন্ন শহরে। ২০১৪ সালের ১৭ এপ্রিল মেক্সিকো শহরে তিনি মারা যান।

[উইকিপিডিয়া অবলম্বনে]


মন্তব্য