kalerkantho

ব্যক্তিত্ব

১৭ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



ব্যক্তিত্ব

জ্যোতি বসু

পশ্চিমবঙ্গের কিংবদন্তিতুল্য বাঙালি রাজনীতিবিদ জ্যোতি বসু। তিনিই ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের দীর্ঘ মেয়াদের মুখ্যমন্ত্রী। ১৯৭৭ থেকে ২০০০ সাল পর্যন্ত টানা ২৩ বছর তিনি এ দায়িত্ব পালন করেন। এ ছাড়া ১৯৬৪ থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত তিনি সিপিআই (এম) দলের পলিটব্যুরোর সদস্য ছিলেন।

১৯১৪ সালের ৮ জুলাই কলকাতার হ্যারিসন রোডে (বর্তমানে মহাত্মা গান্ধী সড়ক) তাঁর জন্ম। ডা. নিশিকান্ত বসু ও মা হেমতলা বসুর তৃতীয় সন্তান জ্যোতি বসু ছয় বছর বয়সে ধর্মতলার লোরেটো স্কুলে ভর্তি হন। পুরো নাম জ্যোতিরিন্দ্রনাথ বসু। স্কুলে ভর্তির সময় বাবা নাম সংক্ষিপ্ত করে দেন। ইংরেজি ভাষা ও সাহিত্যে অধ্যয়ন শেষে ১৯৩৫ সালে আইন বিষয়ে উচ্চশিক্ষার্থে তিনি যুক্তরাজ্য যান। লন্ডনে ভারতীয় ছাত্রদের নিয়ে গড়ে ওঠা ‘লন্ডন মজলিশ’-এর তিনি ছিলেন প্রথম সম্পাদক। একপর্যায়ে তিনি বিশিষ্ট কমিউনিস্ট দার্শনিক ও লেখক রজনী পাম দত্তের আদর্শে গভীরভাবে অনুপ্রাণিত হন। ব্যারিস্টারি পড়ার পর ১৯৪০ সালে তিনি ভারতে ফিরে এসে ওই বছরই কমিউনিস্ট পার্টির সদস্যপদ নেন। দেশভাগের পর পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভার প্রতিনিধি নির্বাচিত হন বসু। এরপর ১৯৬৭ সালে পশ্চিমবঙ্গের কোয়ালিশন সরকারের উপমুখ্যমন্ত্রী হন। ১৯৭৭ সালের ২১ জুন শপথ নেন পশ্চিমবঙ্গের বামফ্রন্ট সরকারের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে। ১৯৯৬ সালে ভারতের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে তাঁর নাম বিবেচিত হলেও তিনি পার্টির সিদ্ধান্তে তা প্রত্যাখ্যান করেন। কমিউনিস্ট ভাবাদর্শের অনুসারী জ্যোতি বসু আজীবন সাধারণ মানুষের জন্য রাজনীতি করেছেন। ২০১০ সালের ১৭ জানুয়ারি মহান এই নেতার মৃত্যু হয়।

[উইকিপিডিয়া অবলম্বনে]



মন্তব্য