kalerkantho

ব্যক্তিত্ব

৮ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



ব্যক্তিত্ব

নির্মল সেন

সাংবাদিক, রাজনীতিবিদ নির্মল সেন ১৯৩০ সালের ৩ আগস্ট গোপালগঞ্জ জেলার কোটালীপাড়ার দিঘিরপাড় গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর বাবা সুরেন্দ্রনাথ সেনগুপ্ত, মা লাবণ্যপ্রভা সেনগুপ্তা। ১৯৪৬ সালে পুরো পরিবার ভারতে চলে গেলেও নির্মল সেন দেশেই থেকে যান।

শিক্ষক বাবার স্কুলেই তাঁর শিক্ষাজীবন শুরু। পরে বরিশালের বাকেরগঞ্জ বিএম একাডেমি থেকে প্রবেশিকা এবং বিএম কলেজ থেকে আইএসসি পাস করে বিএসসিতে ভর্তি হন। ১৯৪২ সালে নবম শ্রেণিতে পড়ার সময়ই মহাত্মা গান্ধীর ‘ভারত ছাড়’ আন্দোলনে অংশ নিয়ে স্কুল গেটে ১৬ দিন ধর্মঘট করার মাধ্যমে তাঁর রাজনৈতিক জীবন শুরু হয়। ১৯৪৪ সালে তিনি রেভল্যুশনারি সোশ্যালিস্ট পার্টিতে (আরএসপি) যোগ দেন। রাজনৈতিক কারণে কারাগারে গেলে সেখানেই ১৯৬১ সালে স্নাতক পাস করেন। পরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি নেন। অষ্টম শ্রেণিতে পড়ার সময় তিনি হাতে লিখে ‘কমরেড’ পত্রিকা প্রকাশ করেন। ১৯৬১ সালে দৈনিক ইত্তেফাকে সহকারী সম্পাদক পদে কাজ শুরু করেন। এরপর একে একে দৈনিক জেহাদ, দৈনিক পাকিস্তান ও দৈনিক বাংলায় তিনি চাকরি করেছেন। ‘অনিকেত’ শিরোনামে দৈনিক বাংলায় কলাম লিখে তিনি খ্যাতি অর্জন করেন। ‘স্বাভাবিক মৃত্যুর গ্যারান্টি চাই’ শিরোনামে একটি কলাম তাঁকে সর্বোচ্চ খ্যাতি এনে দেয়। পরবর্তী সময়ে লাইনটি স্লোগানে রূপ নেয়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকতা ও গণযোগাযোগ বিভাগে তিনি অতিথি শিক্ষক ছিলেন। রাজনীতিসচেতন নির্মল সেন সারা জীবন মেহনতি মানুষের পক্ষে সংগ্রাম করেছেন। তাঁর উল্লেখযোগ্য বই হলো—‘মানুষ, সমাজ ও রাষ্ট্র’ (প্রবন্ধ), ‘বার্লিন থেকে মস্কো’ (ভ্রমণ), ‘পূর্ব বঙ্গ পূর্ব পাকিস্তান বাংলাদেশ’ (প্রবন্ধ), ‘আমার জবানবন্দি’ ইত্যাদি। দীর্ঘ রোগভোগের পর ২০১৩ সালের ৮ জানুয়ারি তিনি পরলোকগমন করেন।

[উইকিপিডিয়া অবলম্বনে]



মন্তব্য