kalerkantho

ভালো থাকুন

৯ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



বাতজ্বর

স্ট্রেপটোকক্কাস বিটা হিমোলাইটিকাস নামক ব্যাকটেরিয়ার কারণে গলার ভেতর প্রদাহ হলে ও এর যথাযথ চিকিৎসা করা না হলে পরে রিউম্যাটিক ফিভার বা বাতজ্বর হতে পারে। ব্যাকটেরিয়া সংক্রমণের দুই থেকে চার সপ্তাহের ভেতর সাধারণত বাতজ্বর হতে দেখা যায়।

পাঁচ থেকে ১৫ বছর বয়সী শিশুরাই বাতজ্বরে বেশি আক্রান্ত হয়ে থাকে। বাতজ্বরে আক্রান্তদের হৃদযন্ত্র, অস্থিসন্ধি, চামড়া ও মস্তিষ্কজনিত বিভিন্ন উপসর্গ ও লক্ষণ দেখা দেয়। জ্বর, গিরায় গিরায় ব্যথা, চামড়ায় র‍্যাশ বা ক্ষত, পেশির অনিচ্ছাকৃত সঞ্চালন প্রভৃতি দেখা দেয়। বাতজ্বরে আক্রান্তদের হৃদপিণ্ডের ভাল্ভ ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে হৃদপিণ্ডের কার্যকারিতা কমে যায়, হার্ট ফেইলিওর পর্যন্ত হতে পারে। বাতজ্বরের কারণে হৃদযন্ত্র আক্রান্ত হলে এর চিকিৎসা করাটা জটিলতর হয়ে পড়ে। তাই এর প্রতিরোধই উত্তম। গলার ভেতর ব্যাকটেরিয়াজনিত প্রদাহের কারণে গলা ব্যথা হয় এবং গলার নিচের গ্রন্থি ফুলে যেতে পারে। আক্রান্ত শিশুদের প্রতি ১০০ জনের মধ্যে তিনজনের বাতজ্বর হয়ে থাকে। তাই শিশুর গলার নিচের গ্রন্থি ফোলাসহ গলা ব্যথা হলে একে অবহেলা না করে দ্রুত সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করুন।

ডা. মুনতাসীর মারুফ

 


মন্তব্য