kalerkantho

ব্যক্তিত্ব

২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



ব্যক্তিত্ব

বজলুর রহমান

বজলুর রহমান ছিলেন সাংবাদিক, সংস্কৃতিকর্মী, শিশুসংগঠক ও মুক্তিযোদ্ধা। ১৯৪১ সালের ৩ আগস্ট ময়মনসিংহের ফুলপুর উপজেলার চর নিয়ামতপুর গ্রামে তাঁর জন্ম। তিনি শেরপুর জেলার গণবর্দী স্কুল থেকে ম্যাট্রিক, আনন্দ মোহন কলেজ থেকে আইএ, ব্রজমোহন কলেজ থেকে বিএ এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে এমএ ডিগ্রি লাভ করেন। ১৯৬১ সালে ‘দৈনিক সংবাদ’-এ সহকারী সম্পাদক হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন বজলুর রহমান। পরে কিছুদিন ইত্তেফাকে কাজ করেছেন। তিনি সংস্কৃতি ও রাজনীতিমনস্ক সাংবাদিক ছিলেন। ষাটের দশকে তিনি কমিউনিস্ট পার্টি এবং ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টির রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত হন। এ সময় তিনি কমিউনিস্ট পার্টির মুখপত্র সাপ্তাহিক একতার প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৬২ সালের শিক্ষা আন্দোলন, ১৯৬৬ সালের ছয় দফা, ১৯৬৯ সালের গণ-অভ্যুত্থানে তিনি নির্ভয়ে কলম চালিয়েছেন, রাজপথেও নেমেছেন। ১৯৭১ সালে তিনি মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন এবং কমিউনিস্ট পার্টির বিশেষ মুখপত্র ‘মুক্তিযুদ্ধ’ পত্রিকা সম্পাদনা করেন। তিনি দীর্ঘ সময় দৈনিক সংবাদের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক এবং পরে সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

১৯৭২ থেকে ১৯৭৫ সাল পর্যন্ত ‘বাংলাদেশ আফ্রো-এশিয়া গণসংহতি পরিষদ’-এর সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। ১৯৮০ সালে গঠিত ‘বঙ্গবন্ধু পরিষদ’-এর তিনি ছিলেন অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা সদস্য। তিনি জাতীয় প্রেস ক্লাবের সিনিয়র সহসভাপতি ও ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ছিলেন ১৯৮০ থেকে ১৯৯৪ সাল পর্যন্ত। এ ছাড়া তিনি ‘বাংলাদেশ-সোভিয়েত মৈত্রী সমিতি’র সহসভাপতি, আন্তর্জাতিক সাংবাদিক সংস্থা আইওজের বাংলাদেশ শাখার সভাপতি, বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার পরিচালনা পরিষদ ও বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান এবং শিশু সংগঠন ‘খেলাঘর’-এর সভাপতি ছিলেন। তাঁর প্রণীত ‘বাংলাদেশের অর্থনীতির হালচাল : ১৯৭৪-১৯৮৭’ (২০১০) একটি মূল্যবান গ্রন্থ। ২০০৮ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি বজলুর রহমান মৃত্যুবরণ করেন।

[বাংলাপিডিয়া অবলম্বনে]


মন্তব্য