kalerkantho

ভালো থাকুন

২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



নবজাতকের মৃত্যু

নানা কারণে জন্মের পরপরই বা কিছুদিনের মধ্যেই নবজাতকের মৃত্যু হতে পারে। কিছু কারণ নবজাতকের মায়ের সঙ্গে সম্পর্কিত।

মায়ের ৩৫ বছরের বেশি বয়স, স্থূলতা, প্রথম গর্ভধারণ, অধিক গর্ভধারণ, ধূমপান প্রভৃতি সমস্যা থাকলে সে ক্ষেত্রে নবজাতকের মৃত্যুঝুঁকি বাড়ে। এ ছাড়া অন্যান্য ঝুঁকিপূর্ণ বিষয়ের মধ্যে রয়েছে প্রসূতির অ্যাকলাম্পশিয়া, জীবাণু সংক্রমণ, বাধাপ্রাপ্ত প্রসব, প্রসবের আগে মায়ের রক্তক্ষরণ, জন্মগত অস্বাভাবিক শিশু প্রভৃতি। গবেষণায় দেখা গেছে, সামাজিকভাবে অবহেলিত গোষ্ঠী, সংখ্যালঘু সম্প্রদায়, নিম্ন আয়ের শ্রমজীবী মায়ের ক্ষেত্রে নবজাতকের মৃত্যুহার বেশি। অদক্ষ গ্রাম্য ধাইয়ের হাতে প্রসবের ফলেও শিশুর মৃত্যুর ঝুঁকি বেশি থাকে। মায়ের ঝুঁকিপূর্ণ বিষয় থাকলে গর্ভধারণের আগেই প্রসূতি ও স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞের সঙ্গে পরামর্শ করে নেওয়া উচিত। গর্ভকালে গর্ভধারিণীকে নিয়মিত ডাক্তার দেখাতে হবে এবং চিকিৎসকের পরামর্শ কঠোরভাবে মেনে চলতে হবে। প্রসবের আগেই খেয়াল রাখতে হবে, প্রশিক্ষিত ধাইয়ের তত্ত্বাবধানে বাড়িতে প্রসবের সুব্যবস্থা আছে কি না। যদি না থাকে সে ক্ষেত্রে হাসপাতালে প্রসব করাতে হবে। সে জন্য আগে থেকেই প্রয়োজনীয় অর্থ ও দ্রুত পরিবহনের ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে।

ডা. মুনতাসীর মারুফ


মন্তব্য