kalerkantho

ভালো থাকুন

৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



ভালো থাকুন

কোরবানির আগে-পরে

কোরবানির পশু যাচাই করে কিনুন। নিষিদ্ধ ওষুধ প্রয়োগে কোরবানির পশু মোটাতাজা করার সংবাদ প্রায়ই চোখে পড়ে। এ ধরনের পশুর মাংস মানবস্বাস্থ্যের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ। পশুর হাটে যাওয়ার সময় অভিজ্ঞ কাউকে সঙ্গে নিন। চলাচলের রাস্তার ওপর বা যেখানে-সেখানে কোরবানি না করাই উচিত। অনেকেই, বিশেষত শহরাঞ্চলে জায়গার অভাবে অথবা উপযুক্ত স্থানের দূরত্বের কারণে যেখানে-সেখানে পশু কোরবানি করেন এবং এরপর সেই স্থানটি ভালোভাবে পরিষ্কারও করেন না। ফলে দীর্ঘদিন ধরে ওই স্থান ও এর আশপাশের জায়গাটুকু দুর্গন্ধময় হয়ে থাকে। সেখান দিয়ে চলাচল করা যেমন দুষ্কর হয়ে দাঁড়ায়, তেমনি এ ধরনের পরিবেশ থেকে নানা রোগজীবাণু ছড়িয়ে পড়ে আপনার ও আপনার চারপাশের মানুষের স্বাস্থ্যঝুঁকি বাড়তে পারে। কোরবানির পর পশুর রক্ত ও অন্যান্য আবর্জনা ফেলে রাখবেন না। যত দ্রুত সম্ভব পশু জবাই করার স্থান ও এর আশপাশ পরিচ্ছন্ন ও জীবাণুমুক্ত করে ফেলুন। কোনো প্রতিষ্ঠানের ওপর নির্ভর না করে নিজেরাই যতটা সম্ভব পরিষ্কার করে ফেলুন। প্রয়োজনে জীবাণুনাশক পাউডার ও গরম পানি ব্যবহার করুন।

ডা. মুনতাসীর মারুফ


মন্তব্য