kalerkantho

শুক্রবার । ২০ জানুয়ারি ২০১৭ । ৭ মাঘ ১৪২৩। ২১ রবিউস সানি ১৪৩৮।

ভালো থাকুন

৩০ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



ভালো থাকুন

আনডিসেন্ডেড টেস্টিস

জন্মের স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায়, পুরুষ শিশুর ক্ষেত্রে অণ্ডকোষ পেটের মধ্যে বড় হতে থাকে এবং স্বাভাবিকভাবে ইনগুইনাল ক্যানেল বা কুঁচকিপথে অণ্ডথলিতে নেমে আসে। তবে কারো কারো অণ্ডকোষ প্রাকৃতিকভাবে অণ্ডথলিতে পুরোপুরি নেমে আসতে ব্যর্থ হয়। এ অবস্থাকে বলা হয় আনডিসেন্ডেড টেস্টিস। এসব ক্ষেত্রে একটি বা উভয় অণ্ডকোষ পেট বা কুঁচকিতে রয়ে যায়। যেসব পুরুষ শিশু নির্দিষ্ট সময়ের আগেই জন্ম নেয়, তাদের ক্ষেত্রে এ সমস্যা বেশি দেখা যায়। যে পাশের অণ্ডকোষ নেমে আসেনি, সেখানে অণ্ডথলি ছোট দেখা যায়। অণ্ডকোষ নেমে না আসায় বিভিন্ন জটিলতার সৃষ্টি হতে পারে। যেমন—অণ্ডকোষের ক্যান্সার, বন্ধ্যত্ব, ইনগুইনাল হার্নিয়া প্রভৃতি। শিশুর জন্মের সময়ই অণ্ডকোষের এ সমস্যা নির্ণয় করা যায়। অণ্ডকোষ পেটের ভেতর থেকে গেলে আল্ট্রাসাউন্ড পরীক্ষার মাধ্যমে এর অবস্থান নির্ণয় করা যায়। কিছু ক্ষেত্রে ছয় মাস বয়সের ভেতর অণ্ডকোষ আপনা আপনি অণ্ডথলিতে নেমে আসে। ছয় মাসের পর সে সম্ভাবনা বিরল। এ সমস্যার জন্য হরমোনথেরাপি বা শল্যচিকিৎসা অথবা উভয় পদ্ধতিই প্রয়োগ করা যেতে পারে। এ ব্যাপারে বিশেষজ্ঞ পেডিয়াট্রিক ইউরোলজিস্ট বা শল্যচিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

ডা. মুনতাসীর মারুফ


মন্তব্য