kalerkantho

25th march banner

ভালো থাকুন

১৭ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



ভালো থাকুন

কিডনিতে পাথর

দেহের গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ কিডনির অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ রোগ হচ্ছে পাথর জমা হওয়া। শরীরে প্রস্রাব কম উত্পন্ন হলে বেশি পরিমাণে রাসায়নিক বর্জ্য তৈরি হয় এবং সেগুলো কিডনিতে জমে স্ফটিক বা ক্রিস্টালের আকার ধারণ করে, একেই পাথর বলা হয়। পাথর আকারে বেশ ছোট হলে অধিকাংশ ক্ষেত্রে প্রস্রাবের সঙ্গে তা বেরিয়ে যায়। বড় আকারের পাথর কিডনি থেকে মূত্রনালির দিকে এসে আটকে যায়। ফলে পিঠের দুই দিকে ব্যথা হয়। এ ছাড়া বমি, ডায়রিয়া, জ্বর, প্রস্রাবের সঙ্গে রক্ত, প্রস্রাবে জ্বালাপোড়া প্রভৃতি উপসর্গ ও লক্ষণ দেখা দেয়। প্রচুর পরিমাণে পানি পান কিডনিতে পাথর হওয়া প্রতিরোধের অন্যতম প্রধান উপায়। চর্বিজাতীয় খাবার এড়িয়ে চলতে হবে। শরীরের ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে। কিডনিতে পাথর ধরা পড়লে তা যদি খুব ছোট আকারের হয়, সে ক্ষেত্রে রোগীকে প্রচুর পানি পানের উপদেশ দেওয়া হয়, যাতে প্রস্রাবের সঙ্গে তা বেরিয়ে আসতে পারে। পাথরের আকার বড় হলে অপারেশনের প্রয়োজন পড়ে। ব্যথা কমানোর জন্য ব্যথানাশক খাওয়া যেতে পারে। অপারেশনের পর ভবিষ্যতে আবারও যাতে পাথর জমতে না পারে সে জন্য চিকিৎসকের পরামর্শমতো খাদ্যাভ্যাস ও জীবনযাপন প্রণালী গড়ে তুলতে হবে।

ডা. মুনতাসীর মারুফ


মন্তব্য