kalerkantho


পথ চলতে হবে মূল ধর্মগ্রন্থের আলোয়

১৮ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



জঙ্গিগোষ্ঠীগুলো যে বিষাক্ত মতাদর্শ তরুণ প্রজন্মের মধ্যে ঢুকিয়ে দিচ্ছে, এর বিরুদ্ধে লড়াইটা এখন বড় চ্যালেঞ্জ। সেই চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় যেখানে পশ্চিমারা হিমশিম খাচ্ছে, সেখানে বাংলাদেশ কি তৈরি? শুধু ধরপাকড় অথবা সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যু নিশ্চিত করলেই কি জঙ্গি দমন করা সম্ভব? জঙ্গিবাদ দমন করতে হলে সামাজিক সচেতনতা, পারিবারিক খেয়াল ও সবচেয়ে বেশি জরুরি সঠিক ধর্মীয় শিক্ষা।

বাজারে বিক্রি হওয়া সস্তা জিহাদি বইগুলোয় যে কী পরিমাণ অপব্যাখ্যা রয়েছে, তা আমিও ভালো করেই জানি। এটাও জানি সে বইগুলো পড়ার পর ভেতরে একধরনের ভ্রান্তি ছড়িয়ে পড়ে। তাই সবার আগে ভ্রান্তি ছড়ানোর এ মাধ্যমগুলো নিষিদ্ধ করতে হবে। পাড়া বা মহল্লায় জিহাদি বক্তারা মূল ধর্মগ্রন্থের রেফারেন্সবিহীন জিহাদি ওয়াজ করে যুবসমাজের ভেতরে উগ্রতা ও অসহিষ্ণুতার বীজ যে ঢেলে দেন—এর বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নিতে হবে। মূল ধর্মগ্রন্থের সঙ্গে সাংঘর্ষিক কোনো মনগড়া ও স্বার্থসিদ্ধ বক্তব্য ইসলামী নামধারী বইয়ে পাওয়া গেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া উচিত। ধর্মকে বিচার করতে হবে সব সময় মূল ধর্মগ্রন্থের ভিত্তিতে।

 

সোলায়মান শিপন

সরকারি শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ, ঢাকা।


মন্তব্য