kalerkantho


আমরা ইচ্ছা করে কুকুরও চাপা দিই না

৪ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



আমি একজন চালক; গাড়ি চালানোর লাইসেন্স আছে। আমি পেট্রল গাড়িতে হ্যান্ডেল মেরে গাড়ি চালানো শিখেছিলাম।

ওমানে গাড়ি চালিয়ে এসেছি। তবে এখন চাকরি করি লাইনম্যানের। একজন চালককে ফাঁসি, আরেকজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়ার খবর আমরা পেয়েছি। এ রকম রায় ভবিষ্যতেও দেওয়া হলে তাহলে গাড়ি কে চালাবে? দুর্ঘটনা নিছকই দৈবাত ঘটনা। ড্রাইভাররা ইচ্ছা করে একটা কুকুরও চাপা দেয় না। দুর্ঘটনার পর ষোলআনা দোষই ড্রাইভারের হবে, আর কারো দোষ নেই? এমনও হয় পেছনের চাকা গর্তে পড়ার পর যান্ত্রিক গোলযোগে ব্রেক কাজ করে না, তখন মানুষকে বাঁচাতে আমাদের গাছের সঙ্গে গাড়ি মারতে হয়। এই দুর্ঘটনার পর পুলিশ উল্টো গাড়ি থানায় নিয়ে যায়, আমাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলা হয়।

আজ সাতজন পরিবহন শ্রমিককে রিমান্ডে নেওয়ার খবর এসেছে পত্রিকায়। যারা ধর্মঘটের ডাক দিল, তাদের কিছু হবে না, যত দায় শ্রমিকদের? সরকারকে আমাদের কথাও শুনতে হবে।

বড় বড় গর্ত হলো সড়কে, আপনারা ঠিক করলেন না। এই কারণে গাড়ি দুর্ঘটনার পর দায় আমি একা নেব, আপনারা নেবেন না? ড্রাইভাররা কোনো কোনো নেতার ধার ধারে না। তারা পেটের দায়ে গাড়ি চালায়। যে দুজন চালককে দণ্ড দেওয়া হয়েছে, তাদের শাস্তির বিষয়টি পুনর্বিবেচনা করুন। পাকিস্তান সরকার পারেনি। এরশাদ সরকারের আমলে এক ড্রাইভারের ফাঁসির আদেশ হয়েছিল। চার-পাঁচ দিনের মাথায় তা রদ করতে হয়েছে। বিচারকদের কাছে ন্যায় বিচার প্রার্থনা করি।

 

নিজাম উদ্দিন

মাঝিরঘাট, চট্টগ্রাম।


মন্তব্য