kalerkantho


টাকায় যখন লাইসেন্স মেলে

২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



সড়ক দুর্ঘটনা মামুলি ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। বেশ কিছু বিশিষ্ট ব্যক্তিকেও আমরা সড়ক দুর্ঘটনায় হারিয়েছি।

এমনিতেই দুর্ঘটনার বিচার হয় না, হলেও সর্বোচ্চ শাস্তি এত হালকাভাবে দেখলে সড়কে শৃঙ্খলা ফিরবে না। মূলত বাস ও ট্রাকের দুর্ঘটনায় বেশি প্রাণহানি হয়। কিন্তু তাদের নিয়ন্ত্রণে আনার কোনো উদ্যোগ নেই। কোথাও যদি ট্রাফিক পুলিশ থাকেও, তাদের আন্তরিকতার সঙ্গে কাজ করতে আমরা দেখি না। সিসি ক্যামেরা হয়তো কোথাও কোথাও আছে, সেগুলোর ব্যবহার কি আছে? বেপরোয়া গাড়ি চালানোর জন্য কারো কি শাস্তি হয়? ধারণক্ষমতার অতিরিক্ত যাত্রী বহনকারী বাসের বিরুদ্ধেও ট্রাফিক পুলিশ কোনো ব্যবস্থা নেয় না। ফিটনেসবিহীন গাড়ির বিরুদ্ধে অভিযান যেটুকু হয়, তা কেবল ট্রাফিক সপ্তাহ পালনকালে, কিংবা বিশেষ অভিযান পরিচালনার সময়। অভিযান শেষ হলেই গাড়িগুলো রাস্তায় ফিরে আসে। টাকা দিয়ে যে দেশে গাড়ি চালনার লাইসেন্স পাওয়া যায়, সে দেশে গাড়ি দুর্ঘটনা ঘটাই কি স্বাভাবিক নয়? সড়ক ভাঙা, যত্রতত্র হাট, যাত্রীদের অসচেতনতাও দুর্ঘটনার জন্য কম দায়ী নয়। সড়কে শৃঙ্খলা ফেরানোর জন্য নীতিনির্ধারকদের কঠোর অবস্থান গ্রহণ এখন জরুরি হয়ে পড়েছে। যে চালক টাকা দিয়ে লাইসেন্স কিনে তার কাছ থেকে দায়িত্বশীলতা আশা করা যায় না। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিলে মৃত্যুর মিছিল বন্ধ হবে না। দুর্ঘটনার মামলার বিচারও নিশ্চিত হতে হবে। শত শত মামলা হলেও বিচার বা শাস্তি হয় কয়টার?

 

সাবিনা সিদ্দিকী শিবা

ফতুল্লা, নারায়ণগঞ্জ।


মন্তব্য