kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বাণিজ্যে সমতা চাই

১৫ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক, সাংস্কৃতিক ও সামরিক শক্তির দিক থেকে চীন বর্তমানে সারা বিশ্বে একটি অন্যতম শক্তি। এ পরিস্থিতিতে চীনের প্রেসিডেন্ট শি চিনপিংয়ের ঢাকা সফর অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

বিশেষ করে দক্ষিণ এশীয় অঞ্চলে সাম্প্রতিক সময়ে ভারত-মার্কিন সম্পর্কের নতুন আঙ্গিক, ভারত-পাকিস্তান দ্বন্দ্ব্ব ও বৈরী সম্পর্ক এবং এর ফলে সার্ক শীর্ষ সম্মেলন অনুষ্ঠান স্থগিত—পরবর্তী পর্যায়ে চীনা প্রেসিডেন্টের বাংলাদেশ সফর এই দুই দেশের দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কে একটি ভিন্ন ইতিবাচক মাত্রা যোগ করতে পারে, যা এ অঞ্চলে চীনের অবস্থান ও নীতি নতুনভাবে নির্ধারণের সুযোগ তৈরি করে দেবে। তবে সুষ্ঠু ও নিরাপদ বিনিয়োগের স্বার্থে চীন বাংলাদেশে অব্যাহতভাবে রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা দেখতে চায়, কারণ রাজনৈতিক অস্থিরতা ও অনিশ্চয়তা যেকোনো বিদেশি বিনিয়োগের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ।

এই দুই দেশের দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কে কিছু সমস্যাও রয়েছে। যেমন—বর্তমানে বাংলাদেশ-চীন বাণিজ্যে প্রায় ৭০০ কোটি ডলারের অসমতা বিরাজ করছে, যা নিরসনে চীনা বাজারে অধিক হারে বাংলাদেশি পণ্যের শুল্কমুক্ত প্রবেশ নিশ্চিত করার জন্য চীনা প্রেসিডেন্টের সফরকে কাজে লাগাতে হবে। সার্বিকভাবে বলা যায়, চীনা প্রেসিডেন্টের ঢাকা সফর দুই পক্ষ থেকে অতীতের যেকোনো সফরের তুলনায় অধিক গুরুত্বপূর্ণ এবং এটি বাংলাদেশের স্বার্থের উন্নয়নে একটি বড় সুযোগ সৃষ্টি করেছে।

সোলায়মান শিপন

সরকারি শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ, ঢাকা।


মন্তব্য