kalerkantho


প্রথম ধাপ থেকে শিক্ষা নিলাম না

২ এপ্রিল, ২০১৬ ০০:০০



ভোট মানুষের মৌলিক অধিকার। এই অধিকার আদায় করতে গিয়ে মৃত্যু হলে তা বেদনাদায়ক। প্রথম ধাপের নির্বাচনে প্রাণহানি হয়েছে, এবারও মৃত্যু ঠেকানো যায়নি। রাজনীতির জন্য এই যে প্রাণক্ষয় তা মানা যায় না। নির্বাচনে বহিরাগতরাই বেশি সহিংসতা করছে। তারা ভাড়ায়ও আসছে প্রার্থীদের হয়ে। এই ব্যর্থতার দায় নির্বাচন কমিশনকে নিতে হবে। প্রথম ধাপের নির্বাচন থেকে আমরা কেন কোনো শিক্ষা নিলাম না? নিলে দ্বিতীয় ধাপেও এই ব্যাপক সহিংসতা, এত প্রাণহানি হতো না। নির্বাচন মানেই মানুষ তাদের জনপ্রতিনিধি নির্বাচন করবে। এবার দলীয় প্রতীকে নির্বাচন হওয়ায় দলীয় পরিচয়ে প্রার্থী ও তাঁদের কর্মীরা শক্তি প্রয়োগ করেছে। প্রভাব খাটিয়েছে। তারা আইন লঙ্ঘন করতে দ্বিধা করেনি। কারণ তাদের মনে হয়েছে, ক্ষমতাসীন দলের পরিচয়ে অপরাধ করলে পার পাওয়া যায়। তারা ক্ষমতার লোভে মানুষের মৌলিক অধিকার হরণ করতেও দ্বিধা করছে না। ফল কী হলো? তারা হয়তো জয়লাভ করেছে, কিছু পরিবার তাদের স্বজনদের হারিয়েছে। নির্বাচনের পরও সহিংসতা থেমে থাকছে না। প্রতিশোধের হামলা চলছে। হত্যাকাণ্ড ঘটছে। পরাজিত প্রার্থীরা বিজয়ী প্রার্থীর লোকজনের ওপর চড়াও হচ্ছে। ঘটছে উল্টোটাও। এ জন্যই কি নির্বাচন? সাধারণ মানুষ কি এমন নির্বাচন আশা করে? না। আমরা আশা কারব, সব পক্ষ আগামী ধাপের নির্বাচনগুলোতে আইন মেনে চলবে। সরকার নিরপেক্ষ থাকবে। অনিয়ম মেনে নেবে না। অপরাধী যে দলেরই হোক তাকে শাস্তির আওতায় আনবে।

সাবিনা সিদ্দিকী শিবা

ফতুল্লা, নারায়ণগঞ্জ।


মন্তব্য